বুধবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:৪৭ পূর্বাহ্ন

বাংলাদেশে হোমিওপ্যাথি ডা. পদবী ও বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল আইন ২০১০

বাংলাদেশে হোমিওপ্যাথি ডা. পদবী ও বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল আইন ২০১০

ডা. মো. আব্দুস সালাম (শিপলু) :
বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল গঠিত ৯ এপ্রিল ১৯৮০ খ্রিস্টাব্দ। বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল সরকারি (এলোপ্যাথি ও ডেন্টাল) নিয়ন্ত্রক সংস্থা। বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল (বিএমডিসি) বাংলাদেশ মেডিকেল কাউন্সিল অ্যাক্টের আওতায় প্রতিষ্ঠিত। ১৯৭৩ খ্রিস্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত এলোপ্যাথি ও ডেন্টাল বিষয়ক এই আইনের নাম বাংলাদেশ মেডিকেল এবং ডেন্টাল কাউন্সিল আইন ১৯৭৩। ঢাকার বিজয় নগরে বিএমডিসির প্রধান কার্যালয় অবস্থিত। মেডিকেল কলেজ (এলোপ্যাথি) এবং ডেন্টাল (দন্ত) কলেজের অনুমোদন দেয় বিএমডিসি। এর ফলে উক্ত মেডিকেল কলেজ (এলোপ্যাথি) এবং ডেন্টাল (দন্ত) কলেজ চিকিৎসক তৈরির ক্ষেত্রে অনুমোদন প্রাপ্ত হয়। এছাড়া মেডিকেল (এলোপ্যাথি) এবং ডেন্টাল (দন্ত) পড়াশোনার পর বাংলাদেশে এ সেবা দেয়ার ব্যাপারে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তরদের অনুমোদন দেয় বিএমডিসি। সংস্থাটি বাংলাদেশে মেডিকেল (এলোপ্যাথি) এবং ডেন্টাল (দন্ত) শিক্ষার ব্যাপারেও নীতিমালা প্রনয়ন করে। এলোপ্যাথি ও ডেন্টাল বিষয়ক বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল আইন ১৯৮০ তা রহিত (বাতিল/রদ) করে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ কর্তৃক ২০১০ খ্রিস্টাব্দে পাস করে “বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল আইন ২০১০ (যা শুধুমাত্র এলোপ্যাথি ও ডেন্টাল আইন)”। যা ২০১০ সালের ৬১নং আইন বা বিএম এন্ড ডিসি এক্ট ২০১০ হিসাবে পরিচিত।
বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল।
(এলোপ্যাথি ও দন্ত বিষয়ক নিয়ন্ত্রণ সংস্থা)
Website : www.bmdc.org.bd
স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এর স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ এর শুধুমাত্র এলোপ্যাথি ও দন্ত বিষয়ক নিয়ন্ত্রণ সংস্থা বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল এর “বাংলাদেশ মেডিকেল ও ডেন্টাল কাউন্সিল আইন, ২০১০” ( ২০১০ সনের ৬১ নং আইন ) যেটা শুধুমাত্র এলোপ্যাথি ও ডেন্টাল চিকিৎসকদের আইন। [“বাংলাদেশ মেডিকেল ও ডেন্টাল কাউন্সিল আইন, ২০১০” এর ধারা : ২৯। (১) এই আইনের অধীন নিবন্ধনকৃত কোন মেডিকেল চিকিৎসক বা ডেন্টাল চিকিৎসক এমন কোন নাম, পদবী, বিবরণ বা প্রতীক এমনভাবে ব্যবহার বা প্রকাশ করিবেন না যাহার  ফলে তাহার কোন অতিরিক্ত পেশাগত যোগ্যতা আছে মর্মে কেহ মনে করিতে পারে, যদি না উহা কোন স্বীকৃত মেডিকেল চিকিৎসা-শিক্ষা যোগ্যতা বা স্বীকৃত ডেন্টাল চিকিৎসা-শিক্ষা যোগ্যতা হইয়া থাকে। ন্যূনতম এমবিবিএস অথবা বিডিএস ডিগ্রী প্রাপ্তগণ ব্যতিত অন্য কেহ তাহাদের নামের পূর্বে ডাক্তার পদবী ব্যবহার করিতে পারিবেনা।]
বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ কর্তৃক ২০১০ খ্রিস্টাব্দে পাসকৃত শুধুমাত্র এলোপ্যাথি ও ডেন্টালদের আইন “বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল আইন ২০১০ (যা শুধুমাত্র এলোপ্যাথি ও ডেন্টাল আইন)”।
বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল
(এলোপ্যাথি ও দন্ত বিষয়ক নিয়ন্ত্রণ সংস্থা)
Website : www.bmdc.org.bd
বাংলাদেশে সরকার স্বীকৃত হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা শিক্ষা সহ হোমিওপ্যাথি বিষয়ক সরকারি সকল কার্যক্রম পরিচালিত হয় সরকারি হোমিওপ্যাথি আইন Bangladesh Homoeopathic Practitioner’s Ordinance, 1983 (Ordi.No.XLI of 1983)।
২০১৩ খ্রিস্টাব্দে Bangladesh Homoeopathic Practitioner’s Ordinance, 1983 পূর্ণরায় কার্যকর করতে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদে পাস হয় “১৯৮২ সালের ২৪ মার্চ হইতে ১৯৮৬ সালের ১১ নভেম্বর তারিখ পর্যন্ত সময়ের মধ্যে জারীকৃত কতিপয় অধ্যাদেশ কার্যকর করণ (বিশেষ বিধান) আইন,২০১৩” (২০১৩ সনের ৭ নং আইন )। প্রজ্ঞাপন ১৯৯৮ এর সংশোধিত গেজেট আইন নম্বর ২০৭ (Ministry of Health and Family Welfare, Goverment of Bangladesh). হোমিওপ্যাথি শিক্ষার জন্য সরকারি হোমিওপ্যাথি আইন ও সরকার স্বীকৃত কোর্স বা ডিগ্রি এবং সরকারি হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক নিবন্ধন জন্য সরকারি হোমিওপ্যাথি নিয়ন্ত্রণ সংস্থা (Regulatory body) বা হোমিওপ্যাথি কর্তৃপক্ষ রয়েছে।
The Bangladesh Homeopathic Board was established on 1972 at Dhaka as an autonomous institution under the ministry of health and family welfare according to ordinance 1983 and regulation 1985 .
Government of Bangladesh to be a model academic institute of homeopathy in the country. The Bangladesh Homeopathy Board (BHB) has been thriving for excellence in Homeopathic education, outstanding patient care and research activity.
BHB imparts both BHMS (Bachelor of Homeopathic Medicine and Surgery) and DHMS (Diploma of Homeopathic Medicine and Surgery).
Bangladesh Homoeopathic Practitioners Ordinance, 1983, (Ordi. No. XLI of 1983), Bangladesh Homoeopathic Board, Ministry of Health & Family Welfare, Government of Bangladesh,
বাংলা একাডেমী সংক্ষিপ্ত বাংলা অভিধান” ও “বাংলা একাডেমী ব্যবহারিক বাংলা অভিধান” অনুুযায়ী “ডা.” ও “হোমিওপ্যাথি” শব্দের আভিধানিক অর্থ :
=====================================
ডাক্তার (ডা.)
ইউরোপীয় পদ্ধতির চিকিৎসক; চিকিৎসক।
চিকিৎসাকারী, ডাক্তার, বৈদ্য, ভিষক।
Doctor; Physician.
হোমিওপ্যাথি
ডা. স্যামূয়েল হ্যানিম্যান (১৭৫৫-১৮৪৩) প্রবর্তিত রোগ সৃষ্টিকর বস্তুর সূক্ষ্মাংশ প্রয়োগে এরুপ রোগের চিকিৎসা প্রণালী; সদৃশ-বিধান।
Homoeopathy.
উল্লেখ্যঃ Western Medicine (অ্যালোপ্যাথি) ও হোমিওপ্যাথি পদ্ধতি প্রথম ইউরোপ মহাদেশে চিকিৎসা বিস্তার ও প্রসার এবং চিকিৎসা বিধান/পাঠ্যপুস্তক, প্রযুক্তি/কলাকৌশল প্রভৃতি প্রয়োগ চলতে থাকে। ফলে সেখানকার চিকিৎসকগণ নামের সঙ্গে “ডা.” লিখত ও লিখে আসছে। কালক্রমে তা বিশ্বব্যাপি বিস্তৃতি লাভ করে…]।
Bangladesh Homoeopathic Practitioner’s Ordinance, 1983 পূর্ণরায় কার্যকর করতে ২০১৩ খ্রিস্টাব্দে জাতীয় সংসদে পাস ২০১৩ সনের ৭নং আইন :
===================================
বাংলাদেশে সামরিক সরকার কর্তৃক সংবিধানের পঞ্চম সংশোধনী ও সপ্তম সংশোধনী তা বাতিল করে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের দেয়া রায় অনুযায়ী দুটি সামরিক সরকারের শাসনামল অবৈধ হয়ে যায়। ১৯৭৫ সালের ২০ আগস্ট থেকে ১৯৭৯ সালের ৯ এপ্রিল পর্যন্ত এবং ১৯৮২ সালের ২৪ মার্চ থেকে ১৯৮৬ সালের ১১ নভেম্বর সময়ের মধ্যে জারি করা সব অধ্যাদেশও অবৈধ। ওই দুই সামরিক শাসনামলে ১৭২টি অধ্যাদেশ জারি হয়েছিল। সিভিল আপীল নং ৪৮/২০১১ এ সুপ্রীম কোর্টের আপীল বিভাগ কর্তৃক প্রদত্ত রায়ে সংবিধান (সপ্তম সংশোধন) আইন, ১৯৮৬ (১৯৮৬ সনের ১নং আইন) এর ধারা ৩ এবং গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের চতুর্থ তফসিলে ১৯ অনু্চ্ছেদ বাতিল ঘোষিত হওয়ায় উক্ত সময়ের মধ্যে জারীকৃত উক্ত অধ্যাদেশ সমূহ কার্যকারিতা হারিয়েছে জানা যায়। তার পরিপ্রেক্ষিতে সরকার ও আইন মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় সংসদ পদক্ষেপ গ্রহণ করে। “১৯৮২ সালের ২৪ মার্চ হইতে ১৯৮৬ সালের ১১ নভেম্বর তারিখ পর্যন্ত সময়ের মধ্যে জারীকৃত কতিপয় অধ্যাদেশ কার্যকর করণ (বিশেষ বিধান) আইন,২০১৩” (২০১৩ সনের ৭ নং আইন ) ২০১৩ খ্রিস্টাব্দে জাতীয় সংসদে পাস করে। [পাসকৃত আইনের তালিকায় ২৮ নম্বরে : “Bangladesh Homoeopathic Practitioner’s Ordinance, 1983 (Ordi.No.XLI of 1983)” রয়েছে]
তা সামরিক সরকারকে বৈধতা নয় বা সামরিক সরকারের অধ্যাদেশকে বৈধতা নয়। দ্রত আইন বাংলায় প্রণয়ন করে পাস করা সময় সাপেক্ষ এজন্য দরকারি কার্যাদি চালাতে সে গুলোর মধ্যে হতে ৮১টি অধ্যাদেশ কে কার্যকরকরণ করতে আইন পাস করলেও শুধুমাত্র সেসব প্রয়োজনীয় অধ্যাদেশ/আইন গুলো বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের রায় অনুযায়ী দ্রুততম সময়ের মধ্যে নতুন করে সম্পূর্ণ বাংলায় লিখে বা প্রণয়ন করে সংযোজন-বিযোজন সহ উল্থাপন করে জাতীয় সংসদ হতে পাস করে কার্যকর করতে হবে।
সংবাদপত্র হতে জানা যায় দুটি সামরিক শাসনামলে জারি করা যে অধ্যাদেশ গুলো এখনও আইনে পরিণত হয়নি, সেগুলোকে আইনে পরিণত করছে সরকার। অনেক সময় অতিক্রম হলেও “বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা শিক্ষা আইন (প্রস্তাবিত)” মন্ত্রী পরিষদে অনুমোদন পেয়েছে ও এখনও জাতীয় সংসদে পাস হয়নি। ২০১৩ খ্রিস্টাব্দ হতে বার বার সংশোধনের নামে কখনও বোর্ড কখনও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে পড়ে থাকা নতুন পূর্ণাঙ্গ আইন “বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা শিক্ষা আইন (প্রস্তাবিত)” দ্রুত পাস করা ও সে আইন অনুযায়ী “বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কাউন্সিল” গঠন করা। সময় এসেছে দ্রুত বোর্ড কর্তৃপক্ষ সঠিক পদক্ষেপ নেবার এবং সময় এসেছে চিকিৎসা পদ্ধতিকে এগিয়ে নেবার। তা না হলে বোর্ডকে বর্তমান ও ভবিষ্যত প্রজন্মের নিকট কঠোর জবাবদিহিতা করতে হতে পারে।
জাতীয় সংসদে পাসকৃত আইনের নাম :
“১৯৮২ সালের ২৪ মার্চ হইতে ১৯৮৬ সালের ১১ নভেম্বর তারিখ পর্যন্ত সময়ের মধ্যে জারীকৃত কতিপয় অধ্যাদেশ কার্যকরকরণ (বিশেষ বিধান) আইন,২০১৩”
( ২০১৩ সনের ৭ নং আইন ) [২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৩]
ডাউনলোড লিংক :
[আইনের তালিকায় ২৮ নম্বরে : “Bangladesh Homoeopathic Practitioner’s Ordinance, 1983 (Ordi.No.XLI of 1983)” রয়েছে]
জাতীয় সংসদে পাসকৃত মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন, ২০১৮ অনুযায়ী সরকার স্বীকৃত হোমিওপ্যাথি DHMS, BHMS পাসকৃতরা “চিকিৎসক (ডা.)” :
===================================
জাতীয় সংসদে পাসকৃত মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন, ২০১৮ অনুযায়ী সরকার অনুমোদিত হোমিওপ্যাথি ডিএইচএমএস ও বিএইচএমএস “চিকিৎসক (ডা.)”। গেজেট পাতা নং ১৫০১৭। সংজ্ঞা ২। (১২)।
মাদকদ্রব্যের নিয়ন্ত্রণ সরবরাহ ও চাহিদা হ্রাস, অপব্যবহার ও চোরাচালান প্রতিরোধ এবং মাদকাসক্তদের চিকিৎসা ও পুর্নবাসন কল্পে বিধান প্রণয়নের জন্য প্রণীত আইন জাতীয় সংসদে পাসকৃত :
“মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন, ২০১৮” (২০১৮ সনের ৬৩ নং আইন)
সংজ্ঞা : ২। (১২) ‘চিকিৎসক’ অর্থ বাংলাদেশ মেডিক্যাল ও ডেন্টাল কাউন্সিল আইন, 2010 (2010 সনের 61 নং আইন) এর ধারা 2 এর দফা (16) এবং (18) এ সংজ্ঞায়িত যথাক্রমে স্বীকৃত ডেন্টাল চিকিৎসক ও স্বীকৃত মেডিক্যাল চিকিৎসক; এবং Bangladesh Homeopathe Practitioners Ordinance, 1983 (Ordinance XLI of 1983) অনুসারে স্বীকৃতিপ্রাপ্ত অথবা স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় হইতে হোমিওপ্যাথিক ডিগ্রিধারী ব্যক্তি এবং Bangladesh Veterinary Practitioner Ordinance, 1982 (XXX of 1982) এর section 2(g) তে সংজ্ঞায়িত Registered Veterinary Practitioner;
“মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন, ২০১৮” (২০১৮ সনের ৬৩ নং আইন)। গেজেট পাতা নং ১৫০১৭।
লিংক :
জাতীয় সংসদে পাসকৃত “মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন, ২০১৮” (২০১৮ সনের ৬৩ নং আইন)।
ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকা, বাংলাদেশে আলাদা সরকারি হোমিওপ্যাথি আইন ও সরকার স্বীকৃত হোমিওপ্যাথি কোর্স এবং পাসকৃতরা ডা, পদবী ব্যবহার :
=====================================
ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকা, বাংলাদেশে আলাদা সরকারি হোমিওপ্যাথি আইন ও সরকার স্বীকৃত হোমিওপ্যাথি কোর্স এবং পাসকৃতরা ডা, পদবী ব্যবহার করে আসছে।
পাকিস্তান জাতীয় পরিষদে (জাতীয় সংসদ) ১৯৬৫ খ্রিস্টাব্দে পাস হয় আইন “Unani, Ayurvedic and Homoeopathic Practitioners Act 1965” এ আইনের মাধ্যমে পশ্চিম পাকিস্তান (পাকিস্তান) ও পূর্ব পাকিস্তান (বাংলাদেশ) হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা শিক্ষার প্রতিষ্ঠান অনুমোদন ও চিকিৎসা শিক্ষার মান নিয়ন্ত্রণ, হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকদের নিয়ন্ত্রণ, হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা পেশার জন্য চিকিৎসক রেজিস্ট্রেশন সনদপত্র প্রদান করে এসেছে।
পাকিস্তান জাতীয় পরিষদে (জাতীয় সংসদ) ১৯৬৫ খ্রিস্টাব্দে পাস হয় আইন “Unani, Ayurvedic and Homoeopathic Practitioners Act 1965” এ আইনের Under Section 5 মাধ্যমে “National Council for Homoeopathy, Pakistan” প্রতিষ্ঠিত ও কার্যকর হয়। Section 24, “Unani, Ayurvedic and Homoeopathic Practitioners Act 1965, Pakistan” অধিনে National Council for Homoeopathy, Government of Pakistan পাকিস্তান সরকার স্বীকৃত ডিএইচএমএস ও বিএইচএমএস হোমিওপ্যাথি কোর্সে পাসকৃতদের কে ডা. হিসাবে চিকিৎসক রেজিস্ট্রেশন সনদপত্র প্রদান করছে ও হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকগণ ডা. পদবী ব্যবহার করে আসছে। ১৯৬৫ খ্রিস্টাব্দে আইন পাস ও কার্যকর হবার পর হতে আইনগতভাবে হোমিওপ্যাথগণ ডা. পদবী ব্যবহার করে আসছে।
“Unani, Ayurvedic and Homoeopathic Practitioners Act 1965”.National Council for Homoeopathy, Government of Pakistan.
বাংলাদেশে হোমিওপ্যাথরা অবগত ১৯৬৫ খ্রিস্টাব্দে পূর্ব পাকিস্থান Unani, Ayurvedic and Homoeopathic Practitioners Act 1965 Pakistan ১৯৮৩ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত বাংলাদেশে বহাল ছিল। তারপর বাংলাদেশে ১৯৮৩ খ্রিস্টাব্দে Unani, Ayurvedic and Homoeopathic Practitioners Act 1965 Pakistan বিলুপ্ত করে নতুন প্রণয়নকৃত Bangladesh Homoeopathic Practitioner’s Ordinance, 1983 (Ordi.No.XLI of 1983) পাস ও কার্যকর হয়। তারপর ২০১৩ খ্রিস্টাব্দে Bangladesh Homoeopathic Practitioner’s Ordinance, 1983 পূর্ণরায় কার্যকর করতে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদে পাস হয় “১৯৮২ সালের ২৪ মার্চ হইতে ১৯৮৬ সালের ১১ নভেম্বর তারিখ পর্যন্ত সময়ের মধ্যে জারীকৃত কতিপয় অধ্যাদেশ কার্যকর করণ (বিশেষ বিধান) আইন,২০১৩” (২০১৩ সনের ৭ নং আইন )।
প্রজ্ঞাপন ১৯৯৮ এর সংশোধিত গেজেট আইন নম্বর ২০৭ (Ministry of Health and Family Welfare, Goverment of Bangladesh).
১৯৮৩ খ্রিস্টাব্দে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এর সরকারি হোমিওপ্যাাথি আইন Bangladesh Homoeopathic Practitioners Ordinance, 1983, (Ordi. No. XLI of 1983) যখন পাস ও কার্যকর তখন সরকারের আর্থিক সীমাবদ্ধতার কারণে সরকার আলাদা হোমিওপ্যাথি কাউন্সিল ও আলাদা জনবল এবং আলাদা অবকাঠামো করেনি। ১৯৮৩ খ্রিস্টাব্দে Bangladesh Homoeopathic Practitioners Ordinance, 1983, (Ordi. No. XLI of 1983) সরকারি আইনে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এর রাস্ট্রীয় বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথি বোর্ড এর রেজিস্ট্রার কে সরকার স্বীকৃত হোমিওপ্যাথি কোর্সে পাসকৃতদের চিকিৎসক সনদপত্র দেবার জন্য অতিরিক্ত ক্ষমতা প্রদান করে। প্রজ্ঞাপন ১৯৯৮ এর সংশোধিত গেজেট আইন নম্বর ২০৭ (Ministry of Health and Family Welfare, Goverment of Bangladesh) চিকিৎসকদের রেজিস্ট্রেশন সনদপত্রের ছক প্রদান করে। চিকিৎসক সনদপত্র প্রদানে বোর্ড বা কাউন্সিল নাম বিষয় নয় সরকারি হোমিওপ্যাথি আইন অনুযায়ী আইনে লিখিতভাবে সরকার যাকে বা সরকারি যে প্রতিষ্ঠান বা সরকারি যে কর্তৃপক্ষ বা সরকারি যে কর্মকর্তাকে দায়িত্ব নিবে সেটাই বৈধ কর্তৃপক্ষ।
১৯৬৫ খ্রিস্টাব্দ হতে বাংলাদেশে সরকার স্বীকৃত হোমিওপ্যাথি কোর্সে পাসকৃতদের কে আইনগতভাবে চিকিৎসক রেজিস্ট্রেশন সনদপত্র প্রদান করছে ও হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকগণ আইনগতভাবে ডা. পদবী ব্যবহার করে আসছে।
বর্তমানে বাংলাদেশে প্রায় ৬৩টি ডিএইচএমএস কোর্সের কলেজ হোমিওপ্যাথিক মেডিক্যাল কলেজ ও ২টি বিএইচএমএস কোর্সের হোমিওপ্যাথিক মেডিক্যাল কলেজ এবং অনেক পাস করে চিকিৎসক পেশায় এসেছে। ফলে বোর্ডের পক্ষে নিয়ন্ত্রণ ও অবকাঠামো এবং যে রকম জনবল থাকা দরকার তা নেই। তাছাড়া বর্তমান বাংলাদেশ মধ্যেম আয়ের দেশে পরিণত হয়েছে। সরকারের আর্থিক সীমাবদ্ধতাও নেই। বিভিন্ন বিষয়ে লক্ষ্য রেখে ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকার সহ প্রায় দেশেই হোমিওপ্যাথি কাউন্সিল আছে। সময়ের প্রয়োজনে বাংলাদেশেও নতুন প্রস্তাবিত আইনে “বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা শিক্ষা আইন জাতীয় সংসদে পাস হবার অপেক্ষায় রয়েছে তা পাস হলে সে আইন অন্তর্ভুক্ত আছে “বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কাউন্সিল (বিএইচএমসি)” তা প্রতিষ্ঠা ও গঠন হবে। তখন হতে বাংলাদেশ সরকার স্বীকৃত হোমিওপ্যাথি ডিএইচএমএস ও বিএইচএমএস কোর্সে পাসকৃত হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকগণ চিকিৎসা পেশার রেজিস্ট্রেশন সনদপত্র/নিবন্ধন প্রদান ও নিয়ন্ত্রণ বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কাউন্সিল (বিএইচএমসি)” করবে।
The Bangladesh Homeopathic Board was established on 1972 at Dhaka as an autonomous institution under the ministry of health and family welfare according to ordinance 1983 and regulation 1985 .
Government of Bangladesh to be a model academic institute of homeopathy in the country. The Bangladesh Homeopathy Board (BHB) has been thriving for excellence in Homeopathic education, outstanding patient care and research activity.
BHB imparts both BHMS (Bachelor of Homeopathic Medicine and Surgery) and DHMS (Diploma of Homeopathic Medicine and Surgery).
Bangladesh Homoeopathic Practitioners Ordinance, 1983, (Ordi. No. XLI of 1983), Bangladesh Homoeopathic Board, Ministry of Health & Family Welfare, Government of Bangladesh,
১। ভারত এর কেন্দ্রীয় সরকার স্বীকৃত হোমিওপ্যাথি কোর্সে পাসকৃত হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকগণকে সরকারি কর্তৃপক্ষ ডা. হিসাবে চিকিৎসক রেজিস্ট্রশন সনদপত্র প্রদান করছে ও চিকিৎসকগণ ডা. পদবী ব্যবহার করে আসছে।
[References : “The Homoeopathy Central Council Act. 1973”, Central Council of Homoeopathy, New Delhi, India. Ministry of AYUSH, Govt. of India. Website : www.cchindia.com]
২। ভারত এর কর্ণাটক রাজ্য সরকার স্বীকৃত হোমিওপ্যাথি কোর্সে পাসকৃত হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকগণকে সরকারি কর্তৃপক্ষ ডা. হিসাবে চিকিৎসক রেজিস্ট্রশন সনদপত্র প্রদান করছে ও চিকিৎসকগণ ডা. পদবী ব্যবহার করে আসছে।
[References : “The Karnataka Homoeopathic Practitioners Act. 1961 (Karnataka 35 of 1961). Under Department of Health & Family Welfare, Govt. of Karnataka, India]
৩। ভারত এর আসাম রাজ্যে  সরকার স্বীকৃত হোমিওপ্যাথি কোর্সে পাসকৃত হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকগণকে সরকারি কর্তৃপক্ষ ডা. হিসাবে চিকিৎসক রেজিস্ট্রশন সনদপত্র প্রদান করছে ও চিকিৎসকগণ ডা. পদবী ব্যবহার করে আসছে।
[References : “The Assam Homoeopathic Medicine Act, 1955 (Assam Act XI of 1955)”, Under Department of Health & Family Welfare, Govt. of Assam, India]
৪। ভারত এর মহারাস্ট্র রাজ্য সরকার স্বীকৃত হোমিওপ্যাথি কোর্সে পাসকৃত হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকগণকে সরকারি কর্তৃপক্ষ ডা. হিসাবে চিকিৎসক রেজিস্ট্রশন সনদপত্র প্রদান করছে ও চিকিৎসকগণ ডা. পদবী ব্যবহার করে আসছে।
[References : “Maharashtra Homoeopathic Practitioners Act, 1959”, Maharashtra Council of Homoeopathy, Mumbai, Government of India]
৫। ভারত এর পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার স্বীকৃত হোমিওপ্যাথি কোর্সে পাসকৃত চিকিৎসকগণকে সরকারি কর্তৃপক্ষ ডা. হিসাবে চিকিৎসক রেজিস্ট্রশন সনদপত্র প্রদান করছে ও চিকিৎসকগণ ডা. পদবী ব্যবহার করে আসছে।
[ References : “West Bengal Homoeopathic System of Medicine Act. 1963”, “Council of Homoeopathic Medicine, West Bengal”. Under Department of Health & Family Welfare, Govt. of West Bengal, India. Website : www.chmwb.org ]
৬। পাকিস্তান সরকার স্বীকৃত হোমিওপ্যাথি ডিএইচএমএস ও বিএইচএমএস কোর্সে পাসকৃত হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকগণকে ডা. হিসাবে সরকারি কর্তৃপক্ষ চিকিৎসক রেজিস্ট্রশন সনদপত্র প্রদান করছে এবং চিকিৎসকগণ ডা. পদবী ব্যবহার করে আসছে।
[References : “Unani, Ayurvedic and Homoeopathic Practitioners Act 1965, Pakistan”, National Council for Homoeopathy, Government of Pakistan. Website : www.nchpakistan.gov.pk]
৭। শ্রীলংকা সরকার স্বীকৃত হোমিওপ্যাথি কোর্সে পাসকৃত হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকগণকে সরকারি কর্তৃপক্ষ ডা. হিসাবে চিকিৎসক রেজিস্ট্রশন সনদপত্র প্রদান করছে ও চিকিৎসকগণ ডা. পদবী ব্যবহার করে আসছে।
[References : Homoeopathic Council, Government of Sri Lanka]
৮। বাংলাদেশ সরকার স্বীকৃত হোমিওপ্যাথি ডিএইচএমএস ও বিএইচএমএস কোর্সে পাসকৃত হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকগণকে সরকারি কর্তৃপক্ষ ডা. হিসাবে চিকিৎসক রেজিস্ট্রশন সনদপত্র প্রদান করছে ও চিকিৎসকগণ ডা. পদবী ব্যবহার করে আসছে।
[References : Bangladesh Homoeopathic Practitioners Ordinance, 1983, (Ordi. No. XLI of 1983)। ২০১৩ খ্রিস্টাব্দে Bangladesh Homoeopathic Practitioner’s Ordinance, 1983 পূর্ণরায় কার্যকর করতে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদে পাস হয় “১৯৮২ সালের ২৪ মার্চ হইতে ১৯৮৬ সালের ১১ নভেম্বর তারিখ পর্যন্ত সময়ের মধ্যে জারীকৃত কতিপয় অধ্যাদেশ কার্যকর করণ (বিশেষ বিধান) আইন,২০১৩” (২০১৩ সনের ৭ নং আইন )।
প্রজ্ঞাপন ১৯৯৮ এর সংশোধিত গেজেট আইন নম্বর ২০৭ (Ministry of Health and Family Welfare, Goverment of Bangladesh).
Bangladesh Homoeopathic Board, Ministry of Health & Family Welfare, Government of Bangladesh,
পরিশেষ :
======
প্রায় সোয়া দুইশত বছর যাবত হোমিওপ্যাথি বিশ্বব্যাপি লড়াই করে টিকে আছে হোমিওপ্যাথিতে রোগী আরোগ্যের বিশাল সফলতা দিয়ে, কারো দয়া বা করুনায় নয়। বাংলাদেশের হোমিওপ্যাথরা প্রত্যাশা করে দ্রুত বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা শিক্ষা আইন জাতীয় সংসদে পাস, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে (হোমিওপ্যাথি, আয়ুর্বেদিক, ইউনানি) আলাদা পূর্ণাঙ্গ বিভাগ বা আলাদা মন্ত্রণালয় অনুমোদন, বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কাউন্সিল প্রতিষ্ঠা, কেন্দ্রীয়ভাবে জাতীয় হোমিওপ্যাথি গবেষণা ইন্সটিটিউট স্থাপন, উচ্চশিক্ষার জন্য সরকারি ও বেসরকারিভাবে হোমিওপ্যাথি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা হবে। আরোও দুরন্ত দুর্বার এগিয়ে যাবে বাংলাদেশের হোমিওপ্যাথি।
(তথ্যসূত্র ও মতামত)
==================================
লেখক পরিচিতি :
ডা. মো. আব্দুস সালাম (শিপলু)।
ডিএইচএমএস (রাজশাহী হোমিওপ্যাথিক মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল)
গভ. রেজিস্টার্ড হোমিওপ্যাথ
এমএসএস (এশিয়ান ইউনিভার্সিটি)
সভাপতি/প্রধান সমন্বয়ক,
বাংলাদেশ ডিএইচএমএস (হোমিওপ্যাথি) চিকিৎসক, শিক্ষক, শিক্ষার্থী অধিকার পরিষদ। কেন্দ্রীয় কমিটি, বাংলাদেশ।
(চিকিৎসক, শিক্ষক, কেন্দ্রীয় হোমিওপ্যাথি নেতা, কেন্দ্রীয় শিক্ষক নেতা, কলামিস্ট ও প্রাক্তন সাংবাদিক)
==================================

শেয়ার করুন .....




© 2018 allnewsagency.com      তত্ত্বাবধানে - মোহা: মনিকুল মশিহুর সজীব
Design & Developed BY ThemesBazar.Com