বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:১৭ পূর্বাহ্ন

চকরাজাপুর ইউ,পি নির্বাচনের তফশীল ঘোষনার সাথেই প্রচার-প্রচারণায় মাঠে শিক্ষক মিজানুর

চকরাজাপুর ইউ,পি নির্বাচনের তফশীল ঘোষনার সাথেই প্রচার-প্রচারণায় মাঠে শিক্ষক মিজানুর

নিজস্ব প্রতিদেক :
নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সারাদেশের ন্যায় চতুর্থ ধাপে রাজশাহী জেলার বাঘা উপজেলার চকরাজাপুর ইউনিয়ন বাউসা ইউনিয়ন ও আড়ানী ইউনিয়ন নির্বাচনের তফশীল ঘোষনা হয়েছে। তফশীল ঘোষনা অনুযায়ী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৩ ডিসেম্বর ২০২১।

 

এদিকে তপশীল ঘোষনার সাথে সাথে নতুন চেয়ারম্যান প্রার্থীরা নড়ে-চড়ে প্রচার প্রচারনা শুরু করেছে। চকরাজাপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে ইতিমধ্যে পাঁচ জন প্রচার প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন, তাদের মধ্যে জনমনে উল্লেখযোগ্য ভাবে দাগ কাটতে শুরু করেছে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শিক্ষক মিজানুর রহমানকে নিয়ে। চকরাজাপুর ইউনিয়নবাসীর প্রত্যাশা আসন্ন ইউ.পি নির্বাচনে নতুন মুখ নির্বার্চিত করবেন এবং বর্তমান যারা সাধারন ভোটারদের কথা চিন্তা করেন, সুখে-দুঃখে খোজ-খবর রাখেন এমন একটি প্রার্থীকে চেয়ারম্যান নির্বাচিত করবেন। আমাদের প্রতিবেদক, এলাকায় গিয়ে আসন্ন নির্বাচন কেন্দ্রিক তথ্য সংগ্রহ করতে গিয়ে সাধারন ভোটারগন এমনটি বলেছেন।

 

 

চকরাজপুর ইউনিয়নের সাধারন জনগন এবার ইউ.পি চেয়ারম্যান হিসাবে একজন সৎ, যোগ্য ও শিক্ষিত ব্যক্তিকে নির্বাচিত করবেন বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন। তবে জনগনের প্রত্যাশা এবার নতুন মুখ নির্বাচিত করে ইউনিয়ন কে মডেল ইউনিয়ন হিসাবে তুলবে। এসকল বিষয় নিয়ে নানা প্রশ্নের উত্তরে উঠে আসে চকরাজাপুর ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক শিক্ষক মিজানুর রহমানের কথা। সাধারন ভোটারগন বলেন এবার আমরা শিক্ষক মিজানুর রহমান কে চকরাজাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত করে চকরাজাপুর কে মডেল ইউনিয়নে রুপ দিব।
আমাদের প্রতিবেদক শিক্ষক মিজানুর রহমানের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, বর্তমান তথ্য ভিত্তিক প্রক্রিয়ায় দেশ এগিয়ে, চলেছে। আমি করোনাকালীন সময়ে চকরাজাপুর ইউনিয়নের জনগনের পাশে থেকে নিজ উদ্যোগে জনগনের অসুবিধা লাঘব করেছে। এই সময় নগদ অর্থ, খাদ্য, বস্ত্র সকল প্রকার সহযোগীতা করেছি চকরাজাপুর ইউনিয়নবাসীদের। নদী ভাঙ্গনে ভাঙ্গন কবলিত ও এলাকার বিভিন্ন প্রকার জনগনের দায়বদ্ধতার পাশে দাঁড়িয়েছি। আমি আশা করি বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ইউ.পি নির্বাচনে আমাকেই নৌকার প্রতীক দিবেন। ইতিপূর্বে যারা দলীয় সিদ্ধান্তের বাহিরে কাজ করেছেন, তারা কখনোই নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন পাবেন না, এব্যাপারে আমি শতভাগ আশাবাদী। সেক্ষেত্রে আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী, মাননীয় শেখ হাসিনার অনুস্বরনীয় ও তাঁরই আস্থাভাজন সাংসদ ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আলহাজ শাহরিয়ার আলমের নেতৃত্বে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের রাজনীতি করি।

 

এসকল সার্বিক বিসয়ে বিবেচনা করে এলাকার জনগন সর্বসেরা নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে আমাকে সর্বোচ্চ ভোটে বিজয়ী করবেন। বর্তমানে অনেকেই আগামী নির্বাচনে অংশ গ্রহনের কথা ভাবছেন। প্রকৃতপক্ষে ভোটারগন মনে করেন এলাকার উন্নয়ন মানেই বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ সরকারের উন্নয়ন। আর এ উন্নয়নের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে হলে সৎ. শিক্ষিত ও যোগ্য ব্যক্তিকে নৌকা প্রতীকে নির্বাচিত করতে হবে। এক্ষেত্রে শিক্ষক মিজানুর রহমানের বিকল্প হয় না। কারণ তিনি সর্বদা জনগনের পাশে আছেন।

শেয়ার করুন .....




© 2018 allnewsagency.com      তত্ত্বাবধানে - মোহা: মনিকুল মশিহুর সজীব
Design & Developed BY ThemesBazar.Com