বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:০১ পূর্বাহ্ন

কি খাবো? কোথায় থাকবো? শিবগঞ্জে বাড়ি দেবে যাওয়া পরিবারগুলোর আহাজারি প্রধান মন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা ভুক্তভোগীদের

কি খাবো? কোথায় থাকবো? শিবগঞ্জে বাড়ি দেবে যাওয়া পরিবারগুলোর আহাজারি প্রধান মন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা ভুক্তভোগীদের

চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও শিবগঞ্জ প্রতিনিধি:

শিবগঞ্জের মোবারকপুরে আকস্মিকভাবে ১১বাড়ি মাটির নীচে দমে যাওয়ার ও আরো ৩২টি বাড়ি ঝুঁকির মধ্যে থাকা পরিবারগুলোর আহাজারিতে আকাশ বাতাত ভারী হয়ে উঠেছে। তারা এখন খোলা আকাশের নীচে বাস করছে।বর্তমানে তাদের ঘরে খাবার নেই। মাথার উপরে ঠাঁই নেই। তাদের কয়েকজন মন্দিরে আশ্রয় নিয়েছে।তাদের জিনিসপত্র গুলো মন্দিরে রাখা হয়েছে।

 

মঙ্গলবার দুপুরে সরজমিনে ঘটনাস্থলে গেলে শ্রী সুন্দরী রানী হলদার, জানান অতিকষ্টে উপর্জন করা অর্থ ও নিজের গয়না বিক্রী করে তিন পাঁকা ঘর নির্মান করেছিলাম কোন ভাবেনি যে এ ভাবে ঘর তিনটির সহ বাড়ি হারা হয়ে নি:স্ হয়ে যাবো। আমি এখন একজন হতভাগী । একই সুরে বিধবা জেলিসা বেগম, জানান, দুই চক্ষু কানা প্রতিবন্ধী মেয়েকে নিয়ে কিযে কষ্টে আছি তা বলে বুঝাতে পারবো না। শীতকালে জিনিস পত্র নিয়ে বাইরে থাকার কষ্ট আর সইতে পারছি না। মূল কারণ খালে পানি শুন্যতা বলে অভিমত ব্যক্ত করেছেন বিভিন্ন পর্যবেক্ষকরা। শুধু তারাই নয়, মন্দিরের মধ্যে আলো চুলায় রান্না করা অবস্থায় রিতা হলদার, বৃষ্টি হলদার শ্রী মালামতি জানান, বড়ই অসহায় অবস্থায় আছি। মন্দিরের মধ্যে সারা রাত বসে থেকে কাটিয়েছি। কোথায় থাকবো ? কি করবো? কি খাবো? কোথায় যাবো? মানুষ নি:স্ব হলেও আশ্রয়স্থানটুকু থাকে।কিন্ত আমাদের দূভাগ্য শেষ আশ্রয়স্থানটুকুই হারালাম। শুধু তারাই নয়, এখানে দমে যাওয়া ১১টিসহ ৪৩টি বাড়ি সদস্যরা চরম আতংকের মধ্যে থেকে আহজারী করছে।ঘটনাস্থলে সাধারণ মানুষের ভীড় অব্যাহত রয়েছে। বাড়ি গুলো দমে যাওয়ার কারণ ভিন্ন ধরনের মন্তব্য দিচ্ছে অনেকে। কানসাট সোলেয়মান ডিগ্রী কলেজের সহকারী অধ্যাপক আলমগীর হোসেন জানান, শুনেছি  প্রায় ৩৫/ ৪০বছর আগে এখানে নতুন করে খাল খননকালে খালের তীরে খাস জমি দখল করে বাড়ি তৈরী করা হয়েছিল। সে বাড়িগুলোই এখন দমে যাচ্ছে। তিনি ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের জন্য সরকারের সহযোগিতা কামনা করেন। তবে স্থানীয়দের অভিযোগ পানি উন্নয়ন বোর্ডের গেট অপারেটর উদ্দেশ্যপ্রণোনিত হয়ে সুইজ গেটের গেট উম্মুক্ত করায় এ ঘটনা ঘটেছে।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপচার্য অধ্যাপক (ভ’তত্ত¡ ও খনিজবিদ্যা বিভাগ) গোলাম সাব্বির সাত্তার জানান, গ্রামের পাশে খালে পানি শুন্যতা, বিশ্ব রোডে ভারী যানবাহন চলাচল ও গ্রামের পানির স্তর নিচে নেমে যাওয়ায় এঘটনা ঘটেছে। এদিকে মঙ্গলবার সকালে চঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সারওয়ার জাহান সুজন,উপবিভাগীয় প্রকৌশলী মাহবুব আলম, উপসহকারী প্রকৌশলী চাঁন মিয়াও উপবিভাগীয় প্রকৌশলী ময়েজ উদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

 

এ ব্যাপারে উপবিভাগীয় প্রকৌশলী ময়েজ উদ্দিন জানান,গ্রামটি খালের তীরে হওয়ায় এবং কোন ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় বাড়িগুলো দেবে গেছে।এ ঘটনায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের কোন করনীয় নেই।ভুতত্ত¡ বিভাগের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে মাটি পরীক্ষা নিরীক্ষা করে বাড়ি গুলো দেবে যাবার কারণ জানাতে পারেন।

 

এব্যাপারে স্থানীয় সংসদ সদস্য ডা: সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাকিব আল রাব্বী, ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়নকর্মখর্তা আরিফুল ইসলাম সহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেছেন এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস দিয়েছেন।

শেয়ার করুন .....




© 2018 allnewsagency.com      তত্ত্বাবধানে - মোহা: মনিকুল মশিহুর সজীব
Design & Developed BY ThemesBazar.Com