শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০৯:১৯ অপরাহ্ন

শাহদৌলা সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ ভিত্তিহীন

শাহদৌলা সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ ভিত্তিহীন

নিজস্ব প্রতিনিধি :
রাজশাহীর বাঘায় শাহদৌলা সরকারি কলেজের বিদায়ী অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) এর বিরুদ্ধে আনিত আর্থিক, একাডেমিক, প্রশাসনিক এবং শিক্ষক-র্কমচারীদের নিকট থেকে কলেজ সরকারী করণে অবৈধভাবে অর্থ আদায়, অনিয়ম, ও দুর্নীাতর কথা উল্লেখ করে দাখিলকৃত অভিযোগটি সম্পুর্ন মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রনোদিত উল্লেখ করে ৫ ৩জন শিক্ষক কর্মচারীর স্বাক্ষরিত, লিখিত একটি প্রতিবাদী আবেদনপত্র উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নকিট দাখিল করা হয়েছে।

 

গত ১১ নভম্বের ২০২১ কলেজটির জ্যেষ্ঠ সহকারী অধ্যাপক আব্দুল মজিদের সভাপতিত্বে এক জরুরি সভায় শিক্ষক কর্মচারীদেও জিজ্ঞাসাবাদ ও মতামতের ভিত্তিতে অভিযোগকারীদেও দাখিলকৃত অভিযোগটি সম্পুর্ন মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রনোদিত বলে প্রমানিত হয়। উক্ত জরুরী সভায় এধরনরে মিথা ও অনাকাঙ্খিত ঘটনার জন্য তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা।

 

উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট দাখিলকৃত আবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে াভিযোগকারীগন কতিপয় সম্মানিত শিক্ষক স্বেচ্ছায়, স্বপ্রণোদিত হয়ে কলেজের অন্য শিক্ষক-কর্মচারীদেও অজ্ঞাতসাওে নিজেদেও স্বার্থ হাসিলের হীন উদ্দেশ্যে শিক্ষক-কর্মচারীদের পক্ষে অভিযোগ দাখিল করেছেন কিন্তু যারা অভিযোগ করেছেন, তারা কোনভাবেই শিক্ষক-কর্মচারীদের প্রতিনিধিত্ব করেন না।

 

গত ১০ নভেম্বও শিক্ষক-কর্মচারীদের পক্ষে বাঘা উপজেলা নির্বাহী অফিসার পাপিয়া সুলতানার নিকট অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) মোজাম্মেল হকের বিরুদ্ধে পৃথক দুইটি অভিযোগ দাখিল করেন কলেজের উৎপাদন ব্যবস্থাপনা ও বিপণন বিভাগের প্রভাষক মোঃ সালাউদ্দীন, প্রাণি বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক আহম্মেদ বেলাল, পর্দাথ বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক মোঃ মতিউর রহমান ও বাংলা বিভাগের প্রভাষক মোঃ শরিফুল ইসলাম ইসলাম। অবসরে যাওয়ার একদিন আগে অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) মোজাম্মেল হকের বিরুদ্ধে আর্থিক, একাডেমিক, প্রশাসনিক এবং শিক্ষক-কর্মচারীদের নিকট থেকে কলেজ সরকারী করণে অবৈধভাবে অর্থ আদায়, অনিয়ম ও দূর্নীতির অভিযোগ করেন ঐ চারজন শিক্ষক।

 

কলেজ সুত্রে জানা গেছে ১১ নভেম্বর শিক্ষকতা জীবনের ইতি টেনে অবসরে যান অধ্যক্ষ মোজাম্মেল হক। জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) এর দায়িত্ব গ্রহন করেন কলেজটির জ্যেষ্ঠে সহকারী অধ্যাপক আব্দুল মজিদ। তাঁরই সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় ( ১১ নভেম্বর) ৫৩ জন শিক্ষক- কর্মচারীর স্বাক্ষরিত একটি আবেদন বাঘা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট দাখিল করা হয়।

 

 

উল্লেখ্য,পররাষ্ট্র প্্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব শাহরিয়ার আলম এম.পি মহোদয়ের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু কন্যা বাংলাদশে সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা কলেজটি জাতীয়করণের ঘোষনা দেন। যার প্রেক্ষিতে ২০১৮ সালেরর আগষ্ট মাসের ৮ তারিখে কলেজটিকে সরকারী করণের জন্য জিও জারি করেন শিক্ষা মন্ত্রনালয় এবং সেসময় জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব¡ পালন করছিলেন মোজাম্মেল হক।

শেয়ার করুন .....




© 2018 allnewsagency.com      তত্ত্বাবধানে - মোহা: মনিকুল মশিহুর সজীব
Design & Developed BY ThemesBazar.Com