বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২২, ০২:১৯ অপরাহ্ন

বাগমারায় বিভিন্ন ইউনিয়নে ক্রমেই বাড়ছে নির্বাচনী সহিংসতা

বাগমারায় বিভিন্ন ইউনিয়নে ক্রমেই বাড়ছে নির্বাচনী সহিংসতা

বাগমারা প্রতিনিধি :

রাজশাহীর বাগমারায় নির্বাচনের দিন যতো ঘনিয়ে আসছে সহিংসতা ততোই বাড়ছে। একে অপরের বিরুদ্ধে নির্বাচনী অফিস ভাংচুর সহ হামলার অভিযোগ উঠেছে। আসন্ন ইউনিয়ন পরিষষদ নির্বাচন উপলক্ষে সম্প্রতি উপজেলা বেশ কয়েকটি ইউনিয়নের দলীয় সহ স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনী অফিস গুড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

 

বুধবার রাতে উপজেলার আউচপাড়া ইউনিয়নে নৌকা ও স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এদিকে নৌকা সমর্থিত সরদার জান মোহাম্মদ এর কর্মী সমর্থকের উপরে সংঘর্ষের ঘটনায় ১৫ টি মটরসাইকেল ভাংচুর করা হয়েছে বলে জানা গেছে। খবর পেয়ে হাটগাঙ্গোপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। ঘটনার পর থেকেই এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা বিরাজ করছে।

 

নৌকা প্রার্থীর কর্মীর মটরসাইকেল ভাংচুরের ঘটনায় বৃহস্পতিবার সকালে খালগ্রাম বাজারে স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুর রহিমের পক্ষের এক কর্মীর মটর সাইকেল ভাংচুরের ঘটনা ঘটায় নৌকা সমর্থিত নেতাকর্মী। সেই সাথে রাতে নৌকা প্রার্থীর মটরসাইকেল ভাংচৃুরের প্রতিবাদে খালগ্রাম বাজারে প্রতিবাদ মিছিল বের করতে চাইলে পুলিশ এসে তা বন্ধ করে দেয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছিল। পরে পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা এসে উত্তেজিত পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেন।

বুধবার রাত উপজেলার আউচপাড়া, কাচারী কোয়ালীপাড়া ও গোয়ালকান্দিসহ বেশ কয়েকটি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থীরা একে অপরের নির্বাচনী অফিসে হামলা চালিয়ে গুড়িয়ে দিয়েছে বলে জানা গেছে।

আউচপাড়া ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুর রহিম জানান, রাত সাড়ে ৭ টার দিকে ৩০/৩৫ জন যুবক দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে আউচপাড়া ইউনিয়নের অধিকাংশ তার নির্বাচনী অফিস ভাংচুর করে। পরে স্থানীয় লোকজন সংঘবদ্ধ হয়ে হামলাকারীদের ধাওয়া করে। এক পর্যায়ে হামলাকারী তাদের ব্যবহৃত মটরসাইকেল গুলো ফেলে পালিয়ে যায়। স্থানীয় লোকজন তাদের মটরসাইকেল গুলো ভাংচুর করে। স্থানীয়দের অভিযোগ নৌকার মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী সরদার জান মোহাম্মদ ইচ্ছা করে ভোটের পরিবেশ নষ্ট করেছেন।

 

এদিকে সরদার জান মোহাম্মদ জানিয়েছেন, তার পক্ষের লোকজন মটর সাইকেল নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণায় বের হয়। এ সময় তাদের উপরে হামলা চালিয়ে ১৫টি মটর সাইকেল ভাংচুর করার পাশাপাশি তাদেরকে ধরে বাড়িতে আটকিয়ে রাখে। পরে পুলিশ গিয়ে ভাংচুরকৃত মটর সাইকেল সহ আটকিয়ে রাখা নেতাকর্মীদের উদ্ধার করে থানায় নেয়।

 

এ ব্যাপারে বাগমারা থানার ওসি মোস্তাক আহম্মেদ বলেন, নির্বাচনকে সামনে রেখে কয়েকটি ইউনিয়নে বিশৃংখলা ঘটেছে। পুলিশ সর্বদায় যে কোন বিশৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। উপজেলায় আইন শৃংখলা বাহিনীর টহল জোরদার করা হয়েছে।

 

শেয়ার করুন .....




© 2018 allnewsagency.com      তত্ত্বাবধানে - মোহা: মনিকুল মশিহুর সজীব
Design & Developed BY ThemesBazar.Com