বুধবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২২, ১১:১৪ অপরাহ্ন

হিম বাতাসে কাঁপছে মান্দার জনপদ

হিম বাতাসে কাঁপছে মান্দার জনপদ

মান্দা (নওগাঁ) প্রতিনিধি :
উত্তরের হিমেল বাতাস আর হাড় কাঁপানো ঠান্ডায় জবুথবু হয়ে পড়ছে মান্দার জনজীবন। সকাল ১০টার আগে সূর্যের দেখা মিলছে না। এতে করে খেটে খাওয়া নিন্ম আয়ের মানুষেরা চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। আগাম বোরো ধান রোপণে শ্রমিক নিয়ে বিপাকে পড়েছেন কৃষকেরা। হাসপাতালে বাড়ছে ঠান্ডাজনিত রোগীর সংখ্যা। এর মধ্যে শিশু রোগীর সংখ্যাই বেশি।

 

আবহাওয়া অফিস বলছে, এ অঞ্চলের ওপর দিয়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। রাতের তাপমাত্রা কমে যাওয়ায় সকালের দিকে হাড় কাঁপানো শীত অনুভুত হচ্ছে। এমন অবস্থা কয়েকদিন চলতে পারে। একই সঙ্গে রাত ও দিনের তাপমাত্রা আরও কমে যেতে পারে।

 

আজ মঙ্গলবার সকালে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, রাস্তাঘাটে লোকজনের তেমন উপস্থিতি নেই। যানবাহনের সংখ্যাও কম। বেলা ১১ টার পর সূর্যের দেখা পাওয়া যায়। এরপর রাস্তাঘাটে লোকজনসহ যানবাহনের উপস্থিতিও বাড়তে থাকে।

 

চার্জার ভ্যানের চালক হাতেম আলী বলেন, সকাল বেলা প্রচন্ড ঠান্ডা পড়ছে। এসময় প্রয়োজন ছাড়া কেউ বাইরে বের হচ্ছেন না। গাড়ী নিয়ে রাস্তায় বের হলেও যাত্রী না পাওয়া উপার্জন অনেক কমে গেছে। এতে করে সংসার পরিচালনায় চাপ পড়েছে।

আরেক ভ্যানচালক আব্দুল হামিদ বলেন, বেলা ১২টার দিকে ভ্যান নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়েছি। এখন পর্যন্ত ভাড়া মারতে পারিনি। ঠান্ডার কারণে দুপুরের পর থেকেই লোকজনের উপস্থিতি কমতে থাকে। এ অবস্থা চলতে থাকলে হাঁড়ি শিকেয় উঠবে।

অন্যদিকে উপজেলার নিচু এলাকাগুলোতে শুরু হয়েছে আগাম বোরো ধান রোপণের কাজ। সকালে হাঁড় কাঁপানো ঠান্ডার কারণে শ্রমিকরা কাজ যেতে অনীহা প্রকাশ করছে। এতে শ্রমিক সংকটে পড়েছেন কৃষকেরা। শ্রমের দামও বেড়ে গেছে।

নওগাঁর বদলগাছী আওহাওয়া দপ্তরের দায়িত্বরত কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বলেন, এ অঞ্চলের ওপর দিয়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। মঙ্গলবার সকাল ৯টায় তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আগামী ৩-৪ দিন একই অবস্থা বিরাজ করতে পারে। একই সঙ্গে বাড়তে পারে কুয়াশার পরিমান।

 

মান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা বিজয় কুমার রায় বলেন, হাসপাতালে প্রতিনিয়তই বাড়ছে ঠান্ডাজনিত রোগীর সংখ্যা। এর মধ্যে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত শিশু রোগীর সংখ্যা অনেক বেশি। এছাড়া নিউমোনিয়া, বাত-ব্যথা ও শ্বাসকষ্টের রোগীর সংখ্যাও বাড়ছে। গত এক সপ্তাহে ঠান্ডাজনিত রোগে অর্ধশতাধিক রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিয়েছে।

 

শেয়ার করুন .....




© 2018 allnewsagency.com      তত্ত্বাবধানে - মোহা: মনিকুল মশিহুর সজীব
Design & Developed BY ThemesBazar.Com