রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:২০ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
গোদাগাড়ী পৌরসভার মেয়র পদে প্রার্থীতা ফিরে পেলেন রবিউল আলম বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছয় হাজার মাস্ক বিতরণ করলেন: পিন্টু শ্রীপুরে ইউপি নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পেলে বিপুল ভোটে জয়ের আশা মায়ের ওপর অভিমান করে শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা হাতিয়াতে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে আহত ৫ শেখ হাসিনার নেতৃত্ব ও দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককে গুরুত্ব দিয়ে আসছে সৌদি সরকার আফগানিস্তানের জালালাবাদে পাঁচটি বিস্ফোরণ, নিহত ৩ নিরাপত্তা ইস্যুতে পাকিস্তান সফর বাতিল করতে পারে ইংল্যান্ডও কাল থেকে ফের পর্দা উঠছে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের ইউরেনিয়াম পরিশোধনের স্থাপনা সম্প্রসারণ শুরু করছে উত্তর কোরিয়া
বিষের বোতল আর কাবিননামা হাতে তিনদিন ধরে স্বামীর বাড়িতে অনশন

বিষের বোতল আর কাবিননামা হাতে তিনদিন ধরে স্বামীর বাড়িতে অনশন

অল নিউজ ডেস্ক :
টাঙ্গাইলের সখীপুরে সুলতানা খাতুন (২৪) নামের এক নারী স্ত্রীর অধিকার আদায়ে বিষের বোতল আর কাবিননামা হাতে নিয়ে গত তিনদিন ধরে স্বামীর বাড়ির বারান্দায় বসে অনশন করছেন। গত ৩১ জুলাই থেকে উপজেলার দাড়িয়াপুর দক্ষিণপাড়া ফাইলা পাগলার মাজার এলাকায় অধিকার আদায়ের এ অনশন চলছে। স্ত্রীর অধিকার না পেলে তিনি এখানেই বিষপানে আত্মহত্যা করবেন বলে জানান।

 

ওই নারী টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলা সদরের আজগর আলীর মেয়ে। খবর শুনে দল বেধে আশপাশের লোকজন ওই নারীকে একনজর দেখতে ভিড় করছেন।

 

জানা যায়, উপজেলার দাড়িয়াপুর ইউনিয়নের দাড়িয়াপুর ফাইলা পাগলার মাজার এলাকার মৃত মোজাফ্ফর মিয়ার ছেলে আবদুর রহিম মিয়ার সঙ্গে টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলা সদরের আজগর আলীর মেয়ে সুলতানা খাতুনের (২৪) গাজীপুর চৌরাস্তায় সেবা এনজিও নামে একটি প্রতিষ্ঠানে চাকরির সুবাদে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। ওই এনজিওতে সুলতানা ছিলেন মাঠকর্মী আর রহিম ছিলেন সহকারী ম্যানেজার। উভয়ের সম্মতিতে তারা ২০১৭ সালের ৩ আগস্ট ৭ লাখ টাকা দেনমোহরে বিয়ে করেন। সেই থেকে তারা স্বামী-স্ত্রী হিসেবে গাজীপুর চৌরাস্তার ভাওয়াল কলেজ সংলগ্ন আক্কাছ আলীর বাসায় ভাড়া থাকতেন। কিছুদিন আগে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে রহিম বাসা থেকে চলে আসেন এবং তার ব্যবহৃত মুঠোফোনের নম্বর পাল্টিয়ে গ্রামের বাড়ি দাড়িয়াপুরে চলে আসেন। পরবর্তীতে ওই নারী রহিমের সঙ্গে নানাভাবে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তিনি তাকে স্ত্রী হিসেবে অস্বীকার করেন। পরে ঠিকানা মোতাবেক ৩১ জুলাই শনিবার স্ত্রীর অধিকার আদায়ে কাবিননামা এবং বিষের বোতল হাতে নিয়ে স্বামীর বাড়ি চলে আসেন। তার আসার খবর শুনে রহিম ও তার পরিবারের লোকজন বাড়িঘরে তালা ঝুলিয়ে অন্যত্র চলে যান।

স্থানীয় ইউপি সদস্য শাহিন আহমেদ এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত আবদুর রহিমের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে ওই নারীকে জোরপূর্বক বিয়ে করতে বাধ্য করা হয়েছে বলে দাবি করেন।

 

দাড়িয়াপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনসার আলী আসিফ বলেন, বিষয়টি মীমাংসার লক্ষ্যে আগামী ৪ আগস্ট স্বামী রহিমসহ উভয়পক্ষের লোকজনকে ডাকা হয়েছে।

শেয়ার করুন .....




© 2018 allnewsagency.com      তত্ত্বাবধানে - মোহা: মনিকুল মশিহুর সজীব
Design & Developed BY ThemesBazar.Com