সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ১১:৩৯ অপরাহ্ন

শুন্য পিঞ্জর

শুন্য পিঞ্জর

তমা কর্মকার (ভারত বর্ষ )

 

হে অচেনা অতিথি,

তোমাকে কখনো দেখিনি‌|

আমার চর্ম চোখে,

তোমার কথা শুনেছি বার বার,

আমার মায়ের মুখে।

 

কল্পনার আল্পনায় এঁকেছি,

মনের মানস পটে তোমার পদচিহ্ন!

হৃদয়ের ক্যানভাস জুড়ে

মেপেছি তোমার ছবির প্রতিবিম্ব।

 

মানস পটে এসেছো তুমি

নিশ্চুপে নিরালায়!

নিজের অজান্তে

তোমায় ঠাই দিয়েছি

আমার মনের সীমানায়।

 

বসে মায়ের কোলে মায়ের মুখে শুনেছিলাম

ছোট্ট বেলায় তোমার কথা কতো?

যা ছিলো আমার কাছে স্বপ্ন দেখার মতো|

আজ না হয় এই কবিতায় লিখি তারই দু একটি কথা

আমার মতোই জানুক লোকে তোমার দেশ প্রেমের কথা

একটু হলেও বুঝুক তারা তোমার মর্মব্যথা

বাংলাদেশের টুঙ্গিপাড়ায় আকাশ,

নক্ষত্র হতে পড়েছিলে তুমি খসে

 

বাবা মায়ের আদুরে খোকা নামে,

ডাকত গ্রামের সবাই

সেদিন জানতো নাতো কেউ,

শেখ মুজিবুর নামে তুমি হবে খ্যাত।

 

তোমার নামেই রাষ্ট্র গড়বে

তুমিই হবে বিখ্যাত!

সেদিন কি কেউ বুঝেছিল?

ছোট্ট মুজিবকে কোলে নিয়ে|

মায়ের কোল কেমন করে?

ধন্য হলো শেখ মুজিব কে কোলে পেয়ে।

কেউ সেদিন বুঝে ছিলো?

কেমন করে

তুমি হলে রাষ্ট্রনায়ক।

বাংলা কে ভালোবেসে?

কেমন করে তুমি হলে সারা বিশ্বের বঙ্গবন্ধু।

 

জনগনের চেতনা ফেরাতে,

কতবার গেছো জেলে?

তবুও তুমি মেতেছো স্বাধীনতার সংগ্রামে।

৭১ এ মুক্তিযুদ্ধে

বিদেশি আততায়ী রূখতে?

দেশবাসীকে

এক হবার ডাক দিলে।

 

যে ডাক ছিল তোমার বজ্র হুঙ্কার,

সে ডাকে বাংলার জনগন দিয়েছিলো সাড়া,

তাইতো তুমি পড়েছো গলায় বিজয়ীর হার।

 

অনেক চেষ্টা করেও

রুখতে পারেনি তোমায়,

সাধ্য ছিলনা কারো, তোমায় হারাবার।

জয় বাংলার জয়

জাগো বাংলা জাগো।

 

কেঁপে ওঠা কণ্ঠ স্বরে সে কি?

তোমার গর্জন গুরুগম্ভীর

ক্ষমতা ছিলোনা কারো

তোমার সে ডাক এড়াবার।

সুনিপুন হস্তে খাটিয়ে মস্তিষ্ক

জয় লাভ করেছো তুমি,

জিতেছো একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ।

 

দেশবাসীর মুখে ফুটিয়েছো

, তুমি হাসি জনদরদী হয়ে,

বাজিয়েছো তুমি জয়ের

বাঁশি জয়ের মুকুট পরে।

 

তারপর একদিন এল সেই

কলঙ্কময় ইতিহাসের সেই অশুভ মুহূর্ত,

দিনটা ছিলো ১৫আগস্ট

সালটা ছিলো ১৯৭৫

বহিরাগত আততায়ীর হাতে?

বুলেটে ঝাঁঝরা হলো

তোমার বুক।

অজস্র রক্তের চাঁদরে

লুটিয়ে পড়লে তুমি

থেমে গেলো

তোমার হৃদস্পন্দন,

তোমার সাথে তোমার পরিবারের নিষ্পাপ রক্তে ভিজে গেলো?

তোমার দুঃখ সুখের গৃহ আঙ্গিনা।

 

রক্তের লেলিহান শিখায়

লেখা হলো ইতিহাসের এক কালো অধ্যায়|

বাংলার বেতারে ভেসে এলো,

শেখ মুজিবুরের নিহতের খবর,

করুন সুরের সাথে

উঠলো আম জনতার মাঝে?

মুজিব হারা কান্নার রোল|

বুলেটের ঘায়ে শুন্য হলো পিঞ্জর,

শুন্য হলো বাংলাদেশ বাংলা মায়ের কোল।

 

যাবার সময় রেখে গেলে তুমি,

শেখ হাসিনা,শেখ রেহেনা দুটি তোমার আদর্শে গড়া কন্যা সন্তান|

আর তোমার সাধের

জন্মভূমি তোমার রক্তে রাঙ্গানো

স্বাধীন মাতৃভূমি।

 

হে বঙ্গবন্ধু আমারি লিখনির মধ্য দিয়ে,

সমস্ত বিশ্ববাসীর পক্ষ নিয়ে |

 

তোমারে করি এক অঙ্গীকার,

কেড়ে নিয়েছে যারা তুমি সহ তোমার পরিবারের প্রাণ?

যেথায় লুকাক কেউ পাবেনা ছাড়,

পাবেনা কেউ পরিত্রান।

 

তোমার কথা যতবার উঠে আসে বাংলার জনতার মুখে,

ততোবারই তোমায় নিয়ে

নতুন নতুন লেখার স্বপ্ন গড়ি

আমি আপন আত্ম সুখে।

 

 

 

 

শেয়ার করুন .....




© 2018 allnewsagency.com      তত্ত্বাবধানে - মোহা: মনিকুল মশিহুর সজীব
Design & Developed BY ThemesBazar.Com