রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০৬:৪৪ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
চৌমুহনীতে পূজামন্ডপে হামলা, ৩ জনের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন নির্বাচন : অনুমোদনহীন সদস্য অন্তর্ভুক্তির অভিযোগ সংখ্যালঘুদের ওপর হামলার প্রতিবাদে রাজশাহীতে মানববন্ধন রাজশাহী মেডিকেলে করোনা উপসর্গে আরও ২ জনের মৃত্যু শহীদ কামারুজ্জামানের সমাধিতে বিএফইউজের নয়া নেতৃবৃন্দের শ্রদ্ধা দুর্গাপুরে শিক্ষক নিয়োগে তথ্য গোপন করে জালিয়াতির আশ্রয় নেয়ার অভিযোগ রাজশাহী বন বিভাগের অভিযানে ২০১টি পাখি উদ্ধার নেপালে বন্যা ও ভূমিধসে মৃত্যু ১০০ ছাড়িয়েছে সালমোনেলা সংক্রমণ : যুক্তরাষ্ট্রের ৩৭ অঙ্গরাজ্যে পিঁয়াজ ফেলে দেওয়ার পরামর্শ মার্কিন ড্রোন হামলায় নিহত আল-কায়েদার শীর্ষ নেতা
গোদাগাড়ীতে গোপনে ৪০ মণ বই বিক্রি করলেন প্রধান শিক্ষক

গোদাগাড়ীতে গোপনে ৪০ মণ বই বিক্রি করলেন প্রধান শিক্ষক

নিজস্ব প্রতিবেদক :

রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার মাটিকাটা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা ইসমত আরার বিরুদ্ধে ৪০ মণ বই গোপনে বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সদস্য সাদিকুল ইসলাম গত ১৯ সেপ্টেম্বর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও), জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও গোদাগাড়ী উপজেলা মাধ্যমিক কর্মকর্তার কাছে একটি লিখিত অভিযোগ জমা দিয়েছেন।

 

বই বিক্রির বিষয়ে প্রধান শিক্ষক ইসমত আরা বলেন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে তিনি মৌখিকভাবে জানিয়ে বই বিক্রি করেছেন। তবে জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নাসির উদ্দিন বলেছেন, এসব বই সরকারি সম্পত্তি। অবন্টিত বই অবশ্যই ফেরত দিতে হবে। প্রধান শিক্ষক সরকারি বই বিক্রি করে দিয়ে থাকলে অপরাধ করেছেন। এ বিষয়ে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি। গোদাগাড়ীর ইউএনও জানে আলম বলেন, তিনি অভিযোগ পেয়েছেন। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা দুলাল আলমের প্রশ্রয়ে মাটিকাটা স্কুলের প্রধান শিক্ষক নানা দুর্নীতি করে চলেছেন। এলাকাবাসী অভিযোগ দিলেও এই কর্মকর্তা সমঝোতার মাধ্যমে সব অভিযোগ ধামাচাপা দিয়ে আসছেন। এ বিষয়ে শিক্ষা কর্মকর্তা দুলাল আলম কোন কথা বলতে চাননি।

 

অভিযোগে সাদিকুল ইসলাম বলেছেন, গত ১৫ সেপ্টেম্বর সকাল ৭টার সময় পরিচ্ছন্নতাকর্মী শরিফুল ইসলাম স্কুলে গিয়ে দেখতে পান পিয়ন রাসেল ২০ বস্তা বই ভ্যানে তুলছেন। পরিচ্ছন্নতাকর্মী এ সময় পিয়ন রাসেলের কাছে জানতে চান বই কোথায় নিয়ে যাচ্ছেন। পিয়ন রাসেল তাকে জানান, হেড ম্যাডাম ভ্যান পাঠিয়েছেন। তাই বইয়ের বস্তাগুলো তুলে দিচ্ছি। এগুলো বিক্রি করা হয়েছে। একইদিন সন্ধ্যা ৭টার পর পিয়ন রাসেল আবারো পাঁচটি ভ্যান নিয়ে স্কুলে গিয়ে বই নিয়ে যান। অভিযোগকারী বলেছেন, আনুমানিক ৪০ মণ বই পানির দরে বিক্রি করে প্রধান শিক্ষক আনুমানিক ২৫ হাজার টাকা আত্মসাত করেছেন।

 

জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নাসির উদ্দিন বলেন, সরকারি বই বিক্রি করা নিষিদ্ধ। কোন স্কুলে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিতরণের পর বই অবশিষ্ট থাকলে প্রধান শিক্ষক সংশ্লিষ্ট মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে চিঠি দিয়ে বই এর সংখ্যা পরিমাণ জানাবেন। সংশ্লিষ্ট শিক্ষা কর্মকর্তা যথাযথ মাধ্যমে শিক্ষা অধিদপ্তরকে বিষয়টি জানাবেন। অবণ্টিত বই উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে জমা দিতে হবে। অধিদপ্তর বিক্রির অনুমতি দিলে উপজেলা মাধ্যমিক কর্মকর্তাকে প্রধান করে নিলাম কমিটি গঠন করতে হবে। কমিটি উন্মুক্ত নিলামে প্রতিযোগিতামুলক দরে বই বিক্রি করতে পারবেন। সেই টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দিতে হবে। প্রধান শিক্ষক কোনভাবেই নিজে বই বিক্রি করতে পারবেন না।

শেয়ার করুন .....




© 2018 allnewsagency.com      তত্ত্বাবধানে - মোহা: মনিকুল মশিহুর সজীব
Design & Developed BY ThemesBazar.Com