রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০৫:৩২ অপরাহ্ন

পেছন দরজা দিয়ে ক্ষমতায় আসার সুযোগ নেই-আব্দুর রহমান

পেছন দরজা দিয়ে ক্ষমতায় আসার সুযোগ নেই-আব্দুর রহমান

ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি :

আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুর রহমান বলেছেন, জনগণের ম্যান্ডেট ছাড়া পেছন দরজা দিয়ে ক্ষমতায় আসার কোন সুযোগ নেই। তারপরও ষড়যন্ত্রকারীরা থেমে নেই। ক্ষমতায় আসতে হলে অবশ্যয় নির্বাচনের মাধ্যমেই আসতে হবে।

 

এই জন্য অপেক্ষা করতে হবে। নির্বাচন ছাড়া অন্য কোনো পথে ষড়যন্ত্রকারী বিএনপি-জামায়াতের ক্ষমতায় আসার কোনো সুযোগ নেই। আজকে আমরা জামাই আদরে দল করছি। জ্বালা নেই, যন্ত্রনা নেই, কষ্ট নেই। কিন্তু শেখ হাসিনা এতো আরামে ছিলেন না। বহু ত্যাগ ও কষ্ট শিকার করে শেখ হাসিনা একাই এই ১২ টি বছর আওয়ামীলীগকে ক্ষমতায় ধরে রেখেছেন। আর আমরা সবাই দলের সুখ ভোগ করছি।

 

আজ (বুধবার) দুপুরে পাবনার ঈশ্বরদী আলহাজ¦ টেক্সাটাইল মিলস উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আব্দুর রহমান বলেন, বিএনপি ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। এজন্য তারা বিভিন্ন সময়ে নানা রকম কৌশল গ্রহণ করছে। এক সময় তারা বঙ্গবন্ধুর ভাষ্কর্য নিয়ে সারাদেশে তান্ডব চালিয়েছিল। এখন কারা গণ-অভ্যুত্থান করার চেষ্টা করছে। এই জন্য তারেক রহমান বিদেশ থেকে টাকা পাঠাচ্ছে। পাকিস্তানের আইএসআইও টাকা পাঠাচ্ছে। গণ-অভ্যুত্থানের মাধ্যমে শেখ হাসিনা সরকারকে উৎখাত করার গভীর ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। এই দেশে সংবিধান মতে নিরপেক্ষভাবে আগামী সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। জনগণ যাদের ম্যান্ডেট দেবে তারাই ক্ষমতায় আসবে। আর কোনো ষড়যন্ত্র হলে আওয়ামীলীগের কর্মীরা তাদের সকল ষড়যন্ত্রের দাঁতভাঙ্গা জবাব দেবে।

 

প্রেসিডিয়াম সদস্য বলেন, শেখ হাসিনা ৬৮ হাজার গ্রাম বাংলার মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা প্রদান করছেন এবং বাংলাদেশের সকল অসহায়, গরিব মানুষের জন্য বিধবা ভাতা, বয়স্ক ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা, গর্ভবতী ভাতা দিয়ে যাচ্ছেন। ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌছে দিয়েছেন। স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের উপবৃত্তি প্রদান করে যাচ্ছেন। বছরের শুরুতে বিনামূল্য বই বিতরণ করছেন। দেশের সকল স্তরের মানুষের অর্থনৈতিক মুক্তি দেয়ার জন্য শেখ হাসিনাকে অনেক কাঠখড়ি পোড়াতে হয়েছে। ২১ বার মৃত্যুর হাত থেকে বেঁচে এসেছেন। ঈশ্বরদীতেও তিনি হামলার শিকার হয়েছিলেন। তাঁর ট্রেন বহরে বৃষ্টির মত গুলি বর্ষণ করা হয়েছিল। তারপরেও শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে একের পর এক ষড়যন্ত্র করেছেন জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়া, এরশাদ, জামাত-শিবির প্রেতাত্মা গোষ্টি। সর্বশেষ তারেক রহমানের নির্দেশে ২০০৪ সালের ২১আগস্ট শেখ হাসিনার উপর গ্রেনেড হামলা করা হয়। আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা মানবঢাল তৈরি করে শেখ হাসিনাকে রক্ষা করেছিলেন। আ.লীগের নেতাকর্মীদের জীবন থাকতে শেখ হাসিনার ক্ষতি হবে না। শেখ হাসিনাই আমাদের প্রেরনা আমাদের শক্তি ।

 

আওয়ামী লীগের সভাপতি মন্ডলী সদস্য আব্দুর রহমান বলেন, শেখ হাসিনা আজ বাংলাদেশে পেরিয়ে বিশ্বের নেত্রী। তিনি বিশ্বের একজন সৎ প্রধানমন্ত্রী। শেখ হাসিনা হলো মহামানব, তার কোনো ব্যক্তিগত চাওয়া পাওয়ার নেই। তিনি শুধু মানুষের কল্যাণে কাজ করেন। শেখ হাসিনা অতি সাধারণ জীবনযাপন করেন তার কোনো ভোগ-বিলাসিতা নেই। সেইভাবে আমাদের প্রত্যেক স্তরের নেতাকর্মীদের তৈরি করতে হবে। দলে কোন চাঁদাবাজ, মাদক ব্যবসায়ী, সন্ত্রাসী এবং স্বাধীনতা বিরোধী রাজাকারের কেউ আওয়ামীলীগে আসতে পারবে না।

 

ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নায়েব আলী বিশ্বাসের সভাপতিত্বে ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ফরিদুল আলম ফরিদের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন। প্রধান বক্তা ছিলেন পাবনা-৫ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম ফারুক প্রিন্স। এছাড়াও পাবনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য নুরুজ্জামান বিশ্বাস, পাবনা-১ আসনের সংসদ সদস্য শামসুল হক টুকু, পাবনা-৩ মকবুল হোসেন, পাবনা-২ আহমেদ ফিরোজ কবির, পাবনা-সিরাজগঞ্জ আসনের সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য নাদিরা ইয়াসমিন জলি প্রমূখ।

 

স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সূত্রে জানা যায়, উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে একাধিক নেতা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তবে দুটি প্যানেলে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে মোট চারজনের মধ্যে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে। তৃণমুল আওয়ামীলীগ থেকে ঈশ্বরদী পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও মেয়র ইছাহক আলী মালিথা সভাপতি এবং সাবেক ভূমিমন্ত্রী প্রয়াত শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর ছেলে আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সদস্য সাকিবুর রহমান কনক শরীফ সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হয়েছেন। অপর দিকে পাবনা-৪ এমপি নুরুজ্জামান বিশ্বাসের দেওয়া প্যানেলে সভাপতি পদে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলী বিশ্বাস ও সাধারণ সম্পাদক পদে পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ মিন্টু প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তবে বিকেলে সাড়ে ৫ টার দিকে কাউন্সিলসভায় এমপি নুরুজ্জামান বিশ্বাস নিজেই সভাপতি পদে প্রার্থীতা ঘোষণা করেন। এরপরই সব হিসেব নিকেষ পাল্টাতে শুরু করেছে।

 

সর্বশেষ ২০১৩ সালের ১১ জুন ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন হয়। এ সম্মেলনে আনিসুন্নবী নবী বিশ্বাস সভাপতি ও মকলেছুর রহমান মিন্টু সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। এরমধ্যে আনিসুন্নবী বিশ্বাস মারা যাওয়া কমিটির সহ-সভাপতি নায়েব আলী বিশ্বাস দলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন।
বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) বিকেল পনে ৬ টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সম্মেলন চলছে।

 

শেয়ার করুন .....




© 2018 allnewsagency.com      তত্ত্বাবধানে - মোহা: মনিকুল মশিহুর সজীব
Design & Developed BY ThemesBazar.Com