রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১১:৫৯ পূর্বাহ্ন

বাগমারায় খাস পুকুর নিয়ে মসজিদ কমিটি ও স্থানীয় প্রভাবশালী মুখোমুখি

বাগমারায় খাস পুকুর নিয়ে মসজিদ কমিটি ও স্থানীয় প্রভাবশালী মুখোমুখি

মো: সামিউল ইসলাম, প্রতিনিধি :

রাজশাহীর বাগমারার বাসুপাড়া ইউনিয়নের বালানগর গ্রামের মসজিদের দখলকৃত একটি খাস পুকুরের দখল নিয়ে সংঘর্ষ ও উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। বরেন্দ্র অঞ্চলের অধিকাংশ খাস পুকুর গুলো সেচ কাজে ব্যবহিত বন্দোবস্তের বহিরভূত খতিয়ানে উল্লেখ্য। এতে বিগত দিনে ওই সব পুকুরকে ঘিরে বিষ প্রয়োগ ও হামলা-মামলা একাধিকবার চলমান। এরই অংশ হিসেবে মালিকানার দাবিতে বালানগর মৌজার ১ নং খতিয়ান সম্পত্তি স্থানীয় মসজিদ কমিটি ও ইজারা প্রাপ্তির দ্ব›দ্ব দীর্ঘ দিনের। ইতোমধ্যে আদালত পুকুরটির উপর ১৪৪ ধারা জারি করেছেন। বিষয়টি আদালত স্থানীয় সহকারী কমিশনার (ভূমি)কে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের দায়ভার দেন। স্থানীয়দের দাবি এসিল্যান্ড তদন্ত করার আগেই প্রভাবশালী গ্রামের আবদুল মতিনের পক্ষে পুলিশ নিয়ে পুকুরে মাছ ধরতে আসে। এ সময় গ্রামবাসীর সাথে প্রতিপক্ষের ধস্তাধস্তি শুরু হয়। এ সময় গ্রামবাসী মিলিত হলে পুলিশসহ এসিল্যান্ড তড়িঘড়ি করে স্থান ত্যাগ করেন।

 

জানা গেছে, উপজেলার বালানগর মন্ডলপাড়া গ্রামের ধলাই পুকুর দখল নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ চলছিল। বিগত বছর গুলোতে ওই পুকুরকে ঘিরে বিষ প্রয়োগ ও হামলা-মামলা ঘটনায় ঘটেছে। পুকুরের কিছু অংশ স্থানীয় মালিক রয়েছে অবশিষ্ট খাস খতিয়ানভুক্ত। সরকারী ভাবে স্থানীয় মসজিদ কমিটির সভাপতিসহ কতিপয় সদস্য মসজিদের নামে ৩ বছর মেয়াদে লিজ নিয়ে মাছ চাষ শুরু করে। এতে গ্রামের অপর পক্ষ আব্দুল মতিন পূর্বের লিজ গ্রহণের মেয়াদ শেষ না হওয়ার দাবিসহ একই ভাবে সেও পুকুরটি সরকারী ভাবে লিজ নিয়েছে বলে দাবি করে। তিনি জমির মালিকানা সূত্রে কুশিয়ারার দাবিতে দখল দিতে প্রতিপক্ষকে অস্বীকৃতি জানায়। এই ঘটনায় বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) প্রতিপক্ষ আব্দুল মতিন পুকুর দখল নিতে গেলে স্থানীয় মসজিদ কমিটির সাথে সংঘর্ষের মুখোমুখি হয়। এ সময় এসিল্যান্ড মাহমুদুল হাসান পুলিশসহ পুকুরে অবস্থানে আসে। পরে গ্রামের মসজিদ কমিটি এক জোটে ধাওয়া দিলে পুলিশসহ এসিল্যান্ড ও আবদুল মতিন তার দলবল সহ ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।

 

স্থানীয়রা জানান, গ্রামের মন্ডল পাড়া জামের মসজিদের নামে গ্রামের খাস ধলাই পুকুরটি দীর্ঘ ২০ বছর যাবৎ মাছ চাষ করা হয়। এক সময় এমনি এমনি চাষ হলেও বর্তমানে পুকুরটি লিজের মাধ্যমে নেয়া হয়। পুকুরের জলার চারী ধারে স্থানীয় মসজিদের মুসল্লীদের জমি হওয়ায় সহযোগীতার মনভাবে স্থানীরা মসজিদকে ছাড় দিয়ে যে কোন নামে সরকারী ভাবে লিজ নিয়ে মসজিদ কমিটি তা মাছ চাষের আয়ের টাকা উন্নয়ন কাজে ব্যবহার করে। সম্প্রতি খাস পুকুরটি ধারে একটি অংশ আবদুল মতিন ক্রয় করে যা নিয়ে আদালতে পেনশন মামলা চলমান রয়েছে। এদিকে মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ায় পুনরায় পুকুরটি ইজারার জন্য মসজিদ কমিটি অপেক্ষায় ছিল। কিন্তু স্থানীয় প্রভাবশালী আবদুল মতিন গোপনে মেয়াদ শেষ হওয়ার সুবাদে পুনরায় পুকুর লিজ নিতে মরিয়া হয়ে উঠে। এ ঘটনায় অমিমাংসায় উভয়ে পুনরায় পুকুরে মাছ ছেড়েছে। এতে করে স্থানীয় দু’ পক্ষের মধ্যে চরম উত্তেজনা বইছে যে কোন সময় বড় ধরনের রক্তক্ষীয় সংর্ঘর্ষের আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী।

 

এ ব্যাপারে মুঠোফোনের মাধ্যমে সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাহমুদুল হাসানের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

শেয়ার করুন .....




© 2018 allnewsagency.com      তত্ত্বাবধানে - মোহা: মনিকুল মশিহুর সজীব
Design & Developed BY ThemesBazar.Com