শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ০৫:১০ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ার দখলে টিটো-মোশারুলের লড়াই, কার পক্ষ নেবে আ’লীগ আটপাড়ায় প্রধান শিক্ষকগণের মাসিক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত কয়রার বাগালী ইউনিয়ন পরিষদের উন্মুক্ত বাজেট সভা ঠাকুরগাঁওয়ের মাদারগঞ্জ গরু হাটে অতিরিক্ত খাজনা আদায়ের অভিযোগ ঠাকুরগাঁওয়ে রংপুর বিভাগীয় কমিশনার জাকির হোসেনের সাথে মতবিনিময় সভা প্রতারণার নতুন কৌশল ঠাকুরগাওয়ে মসজিদ, মাদ্রাসা সহ পাকাবসতবাড়ী নির্মাণের নামে কোটি কোটি টাকার প্রতারণা আটপাড়ায় খুদে শিক্ষার্থীদের ক্লাস নিলেন ইউএনও এম. সাজ্জাদুল অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবু বক্কর সিদ্দিক শ্যামল ঠাকুরগাঁওয়ে বক্ষব্যাধি ক্লিনিকের এক্সরে মেশিনটি প্রায় ১৫ বছর ধরে নষ্ট হয়ে পড়ে রয়েছে, আর অন্যদিকে চিকিৎসক সংকট ফরিদপুরে গরমে বেড়েছে তাল শাঁসের বিক্রি
দুর্গাপুরে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সরকারি চাল আত্মসাতের অভিযোগ

দুর্গাপুরে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সরকারি চাল আত্মসাতের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক :

রাজশাহী দুর্গাপুর উপজেলার দেলুয়াবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে (জিআর)এর চাল আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় দেলুয়াবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের ১০জন ইউপি সদস্য ওই চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে চাল আত্মসাতের অভিযোগ তুলে তাদের স্বাক্ষরিত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ পাঁচটি দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

দপ্তরগুলো হলো সচিব ত্রাণ ও দুর্যোগ মন্ত্রণালয়, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়, দুর্নীতি দমন কমিশন রাজশাহী, জেলা প্রশাসক রাজশাহী ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

গত ৮ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার দেলুয়াবাড়ী ইউনিয়নের বিভিন্ন কাওমি মাদ্রাসায় ছাত্র-ছাত্রী ও অসহায় গরীব দুঃস্থদের মাঝে বরাদ্দকৃত (জিআর)এর সরকারি ত্রাণের ১২০ বস্তা চাল যার ওজন ৬ হাজার কেজি বিতরণর জন্য উত্তোলন করে ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে আসা হয়। এর পরে সেইদিন ১৯৬ জনের মাঝে নির্ধারিত পরিমানের চেয়ে ২০ কেজি করে চাল কম দিয়ে নামে মাত্র বিতরণ কর্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হয়। পরে বেঁচে যাওয়া ৫০ বস্তা চাল ইউপি সদস্যদের উপস্থিতিতে ইউনিয়ন পরিষদ হলরুমে সংরক্ষণ করে রাখা হয়।

এর পর গত ১১ সেপ্টেম্বর সকালে ওই সকল ইউপি সদস্যরা ইউনিয়ন পরিষদের গিয়ে দেখেন পরিষদের হলরুমে চাল নেই।
হলরুমে দায়িত্বে থাকা হালিমা বেগমকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি জানান, চেয়ারম্যান রিয়াজুল ইসলাম রেন্টুর বডিগার্ড শামীম পরিষদে এসে হল রুমের চাবি চায়। এর পরে তাকে চাবি দিতে অস্বীকৃতি জানালে শামীম তার মোবাইল থেকে চেয়ারম্যানকে ফোন করে তাকে ধরিয়ে দেয়। পরে হালিমা বেগম চেয়াম্যানের আদেশে সেই ঘরের তালা খুলে দেন। এর পরে শামীম তিনটি ভ্যানগাড়ি যোগে ৫০ বস্তার মধ্যে ৩৪ বস্তা চাল নিয়ে চলে যায়। পরে সেই চাল চেয়ারম্যানের নির্দশে বিক্রি করা হয়।

এদিকে এমন ঘটনায় পুরো উপজেলা জুড়ে চলছে ব্যাপক সমালোচনা। রিয়াজুল ইসলাম এর আগেও ভিজিডি-ভিজিএফ চাল বিতরণে অনিয়ম করেছেন। এমনকি তিনি প্রকল্পের টাকা দিয়ে তিনি নিজের পুকুরে যাওয়ার রাস্তাও নির্মান করেছেন। তবে এধরনের অপারাধের জড়িতদের
বিরুদ্ধে এখনো কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি।

দেলুয়াবাড়ী ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য আবুল বাশার বলেন, তারা ১০ ইউপি সদস্য রিয়াজুল ইসলাম রেন্টুর বিরুদ্ধে চাল আত্মসাতে অভিযোগ দিয়েছেন। রিয়াজুল ইসলাম এর আগেও ভিজিডি চাল বিতরণে অনিয়ম করেছেন। বারবার তিনি এধরনের অনিয়ম করেই চলেছেন।

এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সোহেল রানা বলেন, অভিযোগ পেয়েছি, অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করা হয়েছে। তাদের মাধ্যে ভুল বোঝাবুঝির কারনে এমন ঘটনা ঘটেছে।

শেয়ার করুন .....




© 2018 allnewsagency.com      তত্ত্বাবধানে - মোহা: মনিকুল মশিহুর সজীব
Design & Developed BY ThemesBazar.Com