শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩, ০৭:১৭ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
হযরত আল্লামা মুফতি মুজাহিদ উদ্দীন চৌধুরী দুবাগী  (রহ.) হুজুরের অবদান কখনো ভুলার নয়। ভোলাহাটে ইউনিয়ন পর্যায়ে এ্যাথলেটিকস প্রতিযোগিতা। ভোলাহাটে গ্রামবাসির হাতে ভূয়া র‌্যাব, পুলিশে সোর্পদ। প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলেও চমকপ্রদ পদ্ধতিতে ইভিএম এর প্রচারণায় মাঠে নেমেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা মো:দেলোয়ার হোসেন গোবিন্দগঞ্জে আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক মোকাদ্দেস আলী বাদু এর শীতার্তদের মাঝে উষ্ণ উপহার রাজশাহীতে প্রধানমন্ত্রী আগমন উপলক্ষে তাঁতী লীগের প্রচার মিছিল শিবগঞ্জে নার্স লাঞ্ছনার ঘটনায় সাবেক যুবলীগ কর্মীর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ শিবগঞ্জে তথ্য আপার উদ্যোগে উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত দানবীর আলহাজ্ব বশির আহমদের পিতার মৃত্যু বার্ষিকীতে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত। আগুন সন্ত্রাসকে পেছনে ফেলে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী
পুতিনের হাতে নতুন অস্ত্র

পুতিনের হাতে নতুন অস্ত্র

গত ১১ মাস ধরে ইউক্রেনের সঙ্গে যুদ্ধ চলছে রাশিয়ার, ইতোমধ্যে যুদ্ধে ধ্বংসের নানা বিভীষিকার ছবি দেখেছে বিশ্ব। কিন্তু যুদ্ধ থামার কোনও লক্ষণ নেই। বরং আগামী দিনে রণাঙ্গনে আরও পরাক্রমশালী হতে বিপজ্জনক অস্ত্র বানিয়ে ফেলেছে রাশিয়া।

প্রকৃতির রোষে ভূমিকম্পের ফলে সুনামির মতো বিপদ ঘটে। অতীতে সুনামির ভয়াবহতার সাক্ষী থেকেছে গোটা বিশ্ব। এবার পুতিনের একটি আদেশেই সেই সুনামি ঘটতে পারে। ভাবছেন, এ আবার কী ভাবে সম্ভব!

এই অসম্ভবকেই সম্ভব করে ফেলেছে পুতিনের দেশ রাশিয়া। ইউক্রেনের সঙ্গে যুদ্ধের মধ্যেই এমন একটি পরমাণু শক্তিচালিত একটি বিশেষ ধরনের টর্পেডো বানিয়ে ফেলেছে রাশিয়া। যার নাম দেয়া হয়েছে ‘পোসেইডন’ যা কিনা সুনামির মতো জলোচ্ছ্বাস তৈরি করতে পারে। পরমাণু চালিত ডুবোজাহাজ থেকে এই টর্পোডোটি নিক্ষেপ করা হবে। সেই ডুবোজাহাজের কাজও শেষ পর্যায়ে।

রুশ সংবাদ সংস্থা তাস জানিয়েছে, ২০১৮ সালে এই অস্ত্রের কথা প্রথম প্রকাশ্যে এনেছিলেন পুতিন। তার পর থেকেই রাশিয়ার এই অত্যাধুনিক ও বিপজ্জনক অস্ত্র নিয়ে আলোচনা চলেছে। সম্প্রতি পোসেইডন টর্পেডো তৈরির কাজ সম্পূর্ণ হয়েছে। শীঘ্রই তা নৌসেনা ঘাঁটি বেলগ্রেডে পাঠানো হবে।

তাসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গ্রিক পুরাণে সমুদ্রের দেবতার নাম পোসেইডন। তার নামে এই অস্ত্রটিকে নামাঙ্কিত করা হয়েছে। তবে এটি শুধুই টর্পোডো নয়। ড্রোন ও টর্পেডোর সম্মিলিত রূপ হল এই অস্ত্র। পরমাণু শক্তিচালিত স্বয়ংক্রিয় ক্ষেপণাস্ত্র এটি। যা ডুবোজাহাজ থেকে নিক্ষেপ করার পর বহু দূর পর্যন্ত গিয়ে লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে সক্ষম।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, এই টর্পেডোটি লম্বায় ২০ মিটার। তাতে রয়েছে ১৫ মেগাওয়াটের পরমাণু চালিত ইঞ্জিন। ১ হাজার মিটার গভীরে যেতে সক্ষম এই অস্ত্র। পাশাপাশি কমপক্ষে ১ হাজার কিমি দূরত্ব পর্যন্ত পাড়ি দিতে পারে এটি। ঘণ্টায় ২০০ কিমি বেগে ছুটে নিঃশব্দে শত্রুর উপর আঘাত হানতে পারে এই অস্ত্র।

ক্রেমলিনের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, সমুদ্র উপকূলবর্তী এলাকায় ওই টর্পেডোটি নিক্ষেপ করলে সুনামির মতো ব্যাপক জলোচ্ছ্বাস তৈরি হতে পারে। এই অস্ত্র এতটাই শক্তিশালী যে, যুক্তরাষ্ট্রের উপকূলবর্তী শহরগুলো নিমিষেই ধ্বংস করে দিতে পারে। এছাড়াও এই অস্ত্রকে ধ্বংস করতে পারবে, এমন কোনও অস্ত্রই নাকি এই পৃথিবীতে নেই বলেও দাবি করেছে ক্রেমলিন।

শেয়ার করুন .....




© 2018 allnewsagency.com      তত্ত্বাবধানে - মোহা: মনিকুল মশিহুর সজীব
Design & Developed BY ThemesBazar.Com