শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৮:৩৮ অপরাহ্ন

রাজশাহীতে কোরবানির সংগ্রহ করা মাংসের দাম চড়া

রাজশাহীতে কোরবানির সংগ্রহ করা মাংসের দাম চড়া

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীতে কোরবানির সংগ্রহ করা মাংস বিক্রি হচ্ছে ৫২০ টাকা থেকে ৫৫০ টাকা কেজি।

প্রতি বছরই কোরবানি ঈদের দিন বিকেল হলেই বাড়ি বাড়ি সংগ্রহ করা কোরবানির মাংসের বাজার বসে রাজশাহী মহানগরীতে নগরীর বিভিন্ন স্থান থেকে ভিক্ষুক ও খেটে খাওয়া মানুষ বাড়ি-বাড়ি গিয়ে মাংস সংগ্রহ করে বিক্রি করতে নিয়ে আসেন এই বাজারে।

শনিবার বিকেলে ভাসমান বাজারে দেখা যায় শহর ঘুরে দেখা যায় রেলওয়ে স্টেশন, শিরোইল বাস টার্মিনাল, শহীদ কামারুজ্জামান চত্বর, দড়িখড়বোনা মোড়, লক্ষ্মীপুর, হড়গ্রাম, সরকারি মহিলা কলেজের মোড়সহ রাজশাহী মহানগরীর বিভিন্ন মোড়ে বসেছিল কোরবানির সংগ্রহ করা মাংসের বাজার।

গত বছর ৪০০ থেকে ৪৫০ টাকা কেজি দরে সংগহ করা মাংস বিক্রি হয়েছে। কিন্ত এবার বিক্রেতারা দাম নিচ্ছেন ৫২০ টাকা থেকে ৫৫০ কেজি দরে। আর কোরবানির খাসির মাংসের দর ৮০০ থেকে ৮৫০ টাকা।

মহানগরীর শহীদ কামারুজ্জামান চত্বরে মাংস বিক্রেতা কালাম বলেন, সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত তিনি প্রায় ৩০ কেজি মাংস কেনাবেচা করেছেন। এতে তার ভালোই লাভ হয়েছে। পাড়া-মহল্লা থেকে ভিক্ষুক ও দরিদ্র শ্রেণির মানুষ যেই মাংস সংগ্রহ করেছেন তাই তিনি কিনে নিয়েছেন। পরে সেই মাংস আবার ভ্যানে করে বিক্রি করে বেড়িয়েছেন।

নগরীর সাল বাগান এলাকার পলাশ বলেন, যারা কোরবানি দিতে পারেননি এবং যাদের এই মহানগরে বড় খাবারের হোটেল আছে তারাই মূলত এই মাংসের ক্রেতা। কেই আবার ২/৩ কেজি করে কোরবানির সংগ্রহ করা মাংস কিনে বাসায় নিয়ে গিয়ে ঈদের আনন্দ উপভোগ করেন। আর হোটেল ব্যবসায়ীরা এসব মাংস কিনে নিয়ে যান মজুত করে রাখার জন্য। তবে এবার করোনার কারণে বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় হোটেল ব্যবসায়ী ক্রেতা অনেকটাই কম।

তবে সংগ্রহ করা এসব মাংসের দাম বেশি হওয়ায় বিরূপ মন্তব্য করেন দড়ি খরবনা এলাকার ক্রেতা বিজয়। তিনি বলেন, প্রতি বছর এভাবে কোরবানির সংগ্রহ করা মাংসের দাম বাড়লে সাধারণ মানুষ আর কিনতে আসবে না। দোকানের দামেই যদি মাংস কিনতে হয় তাহলে ঈদের একদিন আগেই কেনা ভালো।

শেয়ার করুন .....




© 2018 allnewsagency.com      তত্ত্বাবধানে - মোহা: মনিকুল মশিহুর সজীব
Design & Developed BY ThemesBazar.Com