শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৯:৫৮ অপরাহ্ন

প্রেমিকের আত্মহত্যার দেড় মাস পর প্রেমিকার আত্মহত্যা

প্রেমিকের আত্মহত্যার দেড় মাস পর প্রেমিকার আত্মহত্যা

অল নিউজ  ডেস্ক : প্রেমিকার সঙ্গে অভিমান করে আত্মহত্যা করেন প্রেমিক। প্রেমিকের আত্মহত্যার দেড় মাসের ব্যবধানে শোক সইতে না পেরে এবার আত্মহত্যা করলেন প্রেমিকা। মান-অভিমানে ঝরে গেলো দুটি প্রাণ। তাদের অনাকাঙ্ক্ষিত মৃত্যুতে একটি প্রেমের করুণ সমাপ্তি ঘটলো। পাশাপাশি তাদের মৃত্যুতে পরিবার দুটিকে আজীবন বয়ে বেড়াতে হবে স্বজন হারানোর বেদনা।

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) গণিত বিভাগের চতুর্থ ব্যাচের শিক্ষার্থী সুপ্রিয়া শনিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে ফরিদপুরের নিজ বাড়িতে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। প্রেমিক কুয়েট শিক্ষার্থী তপু মজুমদারের আত্মহত্যার ঘটনার দেড় মাসের ব্যবধানে আত্মহত্যা করেন তিনি। এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের মাঝে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। ভবিষ্যতে এ ঘরনের ঘটনা এড়াতে বিশ্ববিদ্যালয়ে মনস্তাত্ত্বিক পরামর্শ সেল গঠনের দাবি উঠেছে শিক্ষার্থীদের মধ্যে।

সুপ্রিয়া দাসের সহপাঠীরা জানান, কুয়েটের শিক্ষার্থী তপু মজুমদারের সঙ্গে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায় থেকে সুপ্রিয়া দাসের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। দু’জনের বাসাও একই এলাকায়। উভয় পরিবার মেনে নিয়েছিল দু’জনের সম্পর্ক। করোনার মধ্যেও সুপ্রিয়ার বাসায় এসেছিল তপু মজুমদার।

গত ১৪ জুন রাতে মুঠোফোনে দু’জনের মধ্যে ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে সুপ্রিয়া কান্নাকাটি করে ঘুমিয়ে পড়েন। পরদিন সকালে সুপ্রিয়া ঘুম থেকে উঠে তপুর আত্মহত্যার কথা জানতে পারেন। এরপর থেকে মানসিকভাবে ভেঙে পড়নে সুপ্রিয়া। তপুর আত্মহত্যার ঘটনায় সামাজিকভাবে তাকে দোষারোপসহ নানাভাবে বিদ্রুপের শিকার হয় সে। সামাজিক মানসিক চাপে সুপ্রিয়া আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে বলে ধারণা করছেন তার কাছের বন্ধুরা।

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. সুব্রত কুমার দাশ বলেন, ক্যাম্পাস বন্ধ থাকায় সুপ্রিয়া দাস ফরিদপুরের নিজ বাড়িতে অবস্থান করছিল। সেখানে গত শনিবার সন্ধ্যায় গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি। খবর পাওয়ার পর মুঠোফোনে তার পরিবারের সাথে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ যোগাযোগ করেছে। একজন মেধাবী ছাত্রীর অকালে ঝড়ে পড়া খুবই মর্মান্তিক।

এদিকে সুপ্রিয়া দাসের মৃত্যুতে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগ গভীরভাবে শোকাহত। গণিত বিভাগের চেয়ারম্যান চিন্ময়ী পোদ্দার সাক্ষরিত এক শোক বার্তায় সুপ্রিয়া দাসের আত্মার শান্তি কামনা করা হয়। একইসাথে তার শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা ও সহমর্মিতা প্রকাশ করা হয় বিবৃতিতে।

এদিকে সুপ্রিয়ার অকাল মৃত্যুতে শোকার্ত সহপাঠী ও শিক্ষার্থীরা ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনা রোধে বিশ্ববিদ্যালয়ে মনস্তাত্ত্বিক পরামর্শ সেল গঠনের দাবি তুলেছেন।

শিক্ষার্থীদের দাবির সঙ্গে একমত পোষণ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মিজানুর রহমান। বিশ্ববিদ্যালয়ে মনস্তাত্ত্বিক পরামর্শ সেল গঠন জরুরি বলে মনে করেন তিনি।

শেয়ার করুন .....




© 2018 allnewsagency.com      তত্ত্বাবধানে - মোহা: মনিকুল মশিহুর সজীব
Design & Developed BY ThemesBazar.Com