শুক্রবার, ১৮ Jun ২০২১, ১২:১৭ পূর্বাহ্ন

বার্সোলোনায় কি মেসি অধ্যায়ের সমাপ্তি

বার্সোলোনায় কি মেসি অধ্যায়ের সমাপ্তি

নিউজ ডেস্ক : হালকা-পাতলা গায়ে গড়ন আর ঝাঁকড়া চুলে ১৩ বছরের এক কিশোর ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০০০ সালে যোগদেন বার্সেলোনার যুব দলে। নিঃসন্দেহে সময়ের পরিক্রমায় এত দিনে তিনি হয়ে গেছেন ইতিহাস সেরা ফুটবলারদের একজন। এখন তিনি আর কিশোর নেই। কার কথা বলছি, পাঠক হয়তো এতক্ষণে বুঝেই গেছেন। বলা হচ্ছে, বার্সেলোনার সর্বকালের সেরা ফুটবলার লিওনেল মেসির কথা। ১৬ অক্টোবর, ২০০৪ সালে এস্পানিওলের বিপক্ষে লা লিগা ম্যাচ দিয়ে বার্সেলোনার প্রধান দলে যোগ অভিষেক হয় মেসির। ওইদিন যাত্রাটা শুরু হয়েছিল ১-০ জয় দিয়ে। কিন্তু স্রোতের পরতে পরতে ব্লাউগ্রেনস জার্সিতে বুড়ো মেসি খেলে ফেলেছেন ২০ বছরের বেশি সময়।

 

অবশ্য শুরুটা জয় দিয়ে হলেও শেষটা কী হার দিয়ে হবে? গুঞ্জন চলছে মেসি আর থাকছেন না বার্সেলোনায়। সেটি আরো জোরালো হচ্ছে নতুন চুক্তিতে আবদ্ধ না হওয়ায়। ২০২০-২১ মৌসুমে শুক্রবার শেষ ম্যাচ। এ বার মেসিদের বিপক্ষে মাঠে নামছে কাতালান শিবির। রাত ১০টায় ম্যাচটি শুরু হবে।

কিন্তু এই ম্যাচে খেলবেন না লিওনেল মেসি। কোচ রোনাল্ড কোম্যানের সাথে কথা বলে বৃহস্পতিবারই অনুশীলনেও ছিলেন না আর্জেন্টাইন সুপারস্টার। এমনটাই জানানো হয়েছে ক্লাবের পক্ষ থেকে। যদি এই ম্যাচে না নামেন, আর মেসি যদি বার্সার সাথে চুক্তি নববায়ন না করেন, তাহলে সেল্টা ভিগোর বিপক্ষে ম্যাচটাই ছিল বার্সার হয়ে মেসির শেষ ম্যাচ। যে ম্যাচটি বার্সা ২-১ গোলে হেরেছে। তাহলে প্রশ্ন থেকে যাচ্ছে, তবে কি মেসির সমাপ্তিটা হারেই লেখা হচ্ছে?

 

গত মৌসুমের পরই অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছিল মেসিকে নিয়ে। আর্জেন্টাইন তারকা চেয়েছিলেন বার্সেলোনা ছাড়তে। টানাপোড়েনের অবসানে থেকে গেছেন আরো এক মৌসুম। চলে তো যেতেই পারেন। তবে ২০ বছরে কী অর্জন করেছেন, আর বার্সাকে কী দিয়েছেন? তা হিসাব করা সহজ নয়।

তবে এটা তো স্পষ্ট যে এ সময় তিনি হয়েছেন বার্সার ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি শিরোপাজয়ী ফুটবলার। কাতালুনিয়ার দলটির হয়ে এ পর্যন্ত ৩৫টি শিরোপার স্বাদ পেয়েছেন মেসি। ক্যাম্প ন্যু ছেড়ে যাওয়ার আগে ৩২টি ট্রফি জিতেছিলেন আন্দ্রেস ইনেয়েস্তা। এতো শিরোপা জিততে অনেক গোলই প্রায়োজন ছিল বার্সার। মেসি ছিলেন সেই গোল ম্যাশিন। গোল করতে করতে হয়ে গেছেন বার্সার হয়ে সর্বোচ্চ গোলের মালিক। শুধু গোল নয়, বার্সার হয়ে সবচেয়ে বেশি ৭৭৮ ম্যাচ খেলে করেছেন ৬৭২ গোল। এসব অর্জন নিয়ে বর্তমানে তিনি দলের সর্বোচ্চ গোলদাতা।

২০১১-১২ মৌসুমে লা লিগায় ৫০ গোল করে প্রতিযোগিতাটির এক আসরে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড গড়েন মেসি। লা লিগার সবচেয়ে বেশি হ্যাটট্রিকও তার, ৩৪টি।
২০০৯, ২০১০, ২০১১, ২০১২, ২০১৫ ও ২০১৯- মোট ছয়বার ব্যালন ডি’অর জিতেছেন মেসি। সবচেয়ে কম বয়সে তিনবার এই পদক জিতেছিলেন একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে টানা চারবার এ মুকুট জয়ের কৃতিত্বও তার। লা লিগায় আটবার সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার পিচিচি ট্রফি জিতেছেন মেসি। গত মৌসুমে সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়ে তেলমো সাররার ছয়বার জয়ের রেকর্ড ছাপিয়ে যান তিনি।

 

ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লিগের হিসেবে ছয়বার সবচেয়ে বেশি গোলের কীর্তি গড়েছেন মেসি। জিতেছেন ইউরোপিয়ান গোল্ডেন শু; ২০০৯-১০, ২০১১-১২, ২০১২-১৩, ২০১৬-১৭, ২০১৭-১৮ ও ২০১৮-১৯ মৌসুমে এ সাফল্য পান তিনি।

লা লিগায় সবচেয়ে বেশি প্রতিপক্ষের বিপক্ষে গোল তার। বর্ণিল ক্যারিয়ারে লা লিগায় এ পর্যন্ত ৩৭টি দলের বিপক্ষে গোল উদযাপন ফুটবল সুপাস্টার। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সবচেয়ে বেশি প্রতিপক্ষের বিপক্ষে গোল। ৩৩ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড এ পর্যন্ত ৩৫টি দলের জালে বল পাঠিয়েছেন। প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে এক ম্যাচে ৫ গোল করেন মেসি। গার্ড মুলারকে পেছনে ফেলে বার্সেলোনা ও আর্জেন্টিনার হয়ে ৯১ গোল করে এক বর্ষপঞ্জিতে সবচেয়ে বেশি গোলের রেকর্ড করেন বার্সা ফরোয়ার্ড।

 

গোল করার পাশাপাশি গোল করানোতেও পারদর্শী মেসি। ইউরোপের সবচেয়ে বেশি ৩০২ অ্যাসিস্ট দাতাও তিনি। দলের পারফরম্যান্স যেমনই হোক, এ মৌসুমেও মেসি ছিলেন উজ্জ্বল, করেছেন ৩৮ গোল। ২০ বছর আগে বার্সেলোনায় যোগ দিলেন কিশোর হয়ে; এখন তিনি অনেকটা বুড়ো। কিন্তু পারফরম্যান্স বলে, মেসি এখন পূর্বের চেয়ে আরো দক্ষ। দেখার অপেক্ষায় ফুটবল শিল্পকে শৈল্পিকতা দানকারী এই ক্ষুদে জাদুকরের ছুটে চলা কোথায় গিয়ে থামে।

শেয়ার করুন .....




© 2018 allnewsagency.com      তত্ত্বাবধানে - মোহা: মনিকুল মশিহুর সজীব
Design & Developed BY ThemesBazar.Com