বৃহস্পতিবার, ১৭ Jun ২০২১, ১১:২৭ অপরাহ্ন

নবীগঞ্জে নারী কে উদ্ধার ও নির্যাতনের চিত্র তুলার সময় সাংবাদিকের তথ্যের মোবাইল চিনিয়ে নেয় গ্রামের ত্রাস ময়না

নবীগঞ্জে নারী কে উদ্ধার ও নির্যাতনের চিত্র তুলার সময় সাংবাদিকের তথ্যের মোবাইল চিনিয়ে নেয় গ্রামের ত্রাস ময়না

ফরজুন আক্তার মনি,সিলেট ব্যুরো চীফ:
হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলাধীন ১১ নং গজনাই পুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড কায়স্থ গ্রামে পাঁচ দিন যাবৎ জিবা নামের এক নারী কে নির্যাতন করা হলে,নারীর বোন ন্যাশনাল এনভায়রনমেন্ট এন্ড হিউম্যান রাইটস ফাউন্ডেশনের সভাপতি সাংবাদিক ফরজুন আক্তার মনি কে গত ৩০/৫/২১ ইং রোজ রবিবার কান্নাকাটি করে ফোনে জানালে,তিঁনি তাত্ক্ষণিক অবস্থায় ঘটনা স্থলে পৌঁছেন। জিবা বেগমের করুন অবস্থা দেখে তিঁনি চিকিৎসার জন্য কায়স্থ গ্রাম বাজার রিকশা স্ট্যান্ডে পৌঁছার সাথে সাথে কায়স্থ গ্রামের ত্রাস ময়না মিয়ার নেতৃত্বে তিন নারী কে নির্যাতন সহ সাংবাদিকের মোবাইল চিনিয়ে নেওয়ার ঘটনা ঘটে।
জানা যায়,কয়েক বছর আগে মৌলভীবাজার সদর থানার জিবা বেগমের বিয়ে হয় কায়স্থ গ্রামের মৃত দরবেশ মিয়ার ছেলের রুহেল মিয়ার সাথে। বিয়ের কিছু দিন পর টাকার জন্য গর্ভ অবস্থায় নির্যাতন করলে জিবা তার বাপের বাড়ি বাচ্চা প্রসব সহ দীর্ঘ দিন থাকেন।গত রমজান মাসে রুহেল মিয়ার পরিবার বিভিন্ন কৌশলে মুরুব্বির মাধ্যমে জিবা কে আবার নিয়ে আসেন।গত ৫/৬ দিন আগে আবার বিদেশে যাওয়ার টাকা দেওয়ার জন্য নির্যাতন শুরু করেন। নির্যাতনের এক পর্যায় জিবা কে মৌখিক ভাবে তালাক প্রদান করেন রুহেল মিয়া। তালাকের পরও ঘরবন্দী করে পরিবারের সবাই মারপিট করলে জিবা আত্ম রক্ষার জন্য কৌশলে গত ৩০/৫/২১ইং তারিখ রোজ রবিবার বেলা ১২ টায় স্বপ্না বেগমের ঘরে আসেন। স্বপ্না বেগমের ঘরে এসেও রক্ষা পাননি। স্বপ্না বেগম সহ আক্রমণের চেষ্টা চালানোর ঘটনা ঘটলে ন্যাশনাল এনভায়রনমেন্ট এন্ড হিউম্যান রাইটস ফাউন্ডেশনের হবিগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি সাংবাদিক ফরজুন আক্তার মনি কে কান্নাকাটি করে ফোন করলে,তিঁনি তাত্ক্ষণিক অবস্থায় ঘটনা স্থলে পৌঁছেন।মহিলার করুন অবস্থা দেখে ঐ দিনই বেলা অনুমান ৫ টার দিকে নদী পার করে কায়স্থ গ্রাম বাজারের রিকশা স্ট্যান্ডে পৌঁছা মাত্রই জিবা ও স্বপ্না বেগমের উপর কায়স্থ গ্রামের ত্রাস মৃত বাদশা মিয়ার ছেলে ময়না মিয়া প্রায় ২০ জন লোক নিয়ে নির্যাতন ও শ্লীলতাহানি শুরু করেন। দৃশ্যটি সাংবাদিক মনি তথ্য সংগ্রহ করার মোবাইলে ধারণ করার সময় সাংবাদিকের উপর হামলা করে মোবাইল ফোন চিনিয়ে নেয় ময়না মিয়া।
ঘটনাটি নবীগঞ্জ থানার ওসি মোঃ ডালিম আহমেদ জানতে পেরে তাত্ক্ষণিক অবস্থায় গোপলা বাজার ফাঁড়ির এস আই মোঃ হান্নান মিয়া কে ঘটনা স্থলে পাঠিয়ে নির্যাতিত দুজন মহিলা সহ সাংবাদিকের তথ্যের মোবাইল ফোন উদ্ধার করেন। আহত তিন নারী নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নেন।গতকাল ৩১ /৫/২১ইং তারিখ রোজ সোমবার বেলা ১ ঘটিকায় সাংবাদিক মনি’র উদ্ধার কৃত মোবাইল ফোন তার হাতে তুলে দিয়েছেন গোপলা বাজার পুলিশ ফাঁড়ির এস আই মোঃ হান্নান মিয়া।

শেয়ার করুন .....




© 2018 allnewsagency.com      তত্ত্বাবধানে - মোহা: মনিকুল মশিহুর সজীব
Design & Developed BY ThemesBazar.Com