বৃহস্পতিবার, ১৭ Jun ২০২১, ১১:৪৮ অপরাহ্ন

রেলপথকে মাদক চোরাকারবারে ব্যবহার বাড়ছে

রেলপথকে মাদক চোরাকারবারে ব্যবহার বাড়ছে

নিউজ ডেস্ক : মাদক চোরাকারবারে বাড়ছে রেলপথের ব্যবহার। সীমান্তবর্তী এলাকার রেলপথে প্রতিদিনই ইয়াবা, ফেনসিডিল, হেরোইনসহ বিভিন্ন মাদকদ্রব্য প্রবেশ করছে ঢাকায়। গত ৫ মাসে শুধু রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশন থেকেই উদ্ধার হয়েছে দুই মণ গাঁজা ও ২১ হাজার বোতল ফেনসিডিল। রেল পুলিশ বলছে, গতানুগতিক পদ্ধতিতে রোধ করা সম্ভব নয় রেলপথে মাদক পাচার। সীমান্তবর্তী স্টেশনগুলোতে স্ক্যানিং মেশিন বসানোর প্রস্তাব তাদের।

 

গত ১৩ মার্চ সিলেট থেকে ঢাকাগামী কালনী এক্সপ্রেস ট্রেনে কমলাপুরে আসেন সোহেলুর রহমান। যাতায়াতে সন্দেহ হলে তাকে আটক করে রেলওয়ে থানা পুলিশ। সঙ্গে থাকা লাগেজ তল্লাশি করে পাওয়া যায় ভারতীয় ফেনসিডিল। পুলিশ জানায়, সোহেল ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে ঢাকায় নিয়মিত ফেনসিডিল পরিবহন করে।
পুলিশ জানায়, প্ল্যাটফর্মে আমাদেরকে দেখে কুলির কাছে ব্যাগটা দিয়ে পালাতে চেষ্টা করে। পরে আমরা হাতেনাতে তাকে আটক করি।

 

রেলওয়ে পুলিশ বলছে, চট্টগ্রামের ট্রেনে প্রায়ই আসছে ইয়াবা, উত্তরবঙ্গ থেকে ভারতীয় ফেন্সিডিলসহ সিলেট ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ট্রেনগুলো দিয়ে ঢাকায় ঢুকছে হেরোইন। গত ১ মাসেই কমলাপুর থেকে আটক করা হয়েছে দেড় মণ গাজা। যাত্রীবেশী চোরাকারবারিরা দিন দিন পাল্টাচ্ছেন কৌশল। ফলে নিয়ন্ত্রণ সম্ভব হচ্ছে না।
কমলাপুর রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাজহারুল ইসলাম বলেন, উত্তরবঙ্গের ট্রেন থেকে ফেনসিডিল পাওয়া যাচ্ছে। আর ইয়াবাটা চট্টগ্রাম থেকে আসা ট্রেনগুলোতে পাওয়া যাচ্ছে।
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম এখনও সনাতনী পদ্ধতিতেই চলছে স্বীকার করে রেল পুলিশ এএসপি ফিরোজ আহমেদ বলেন, সীমান্তবর্তী স্টেশনগুলোতে ডিজিটাল স্ক্যানিং মেশিন বসানোসহ আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করতে হবে।

গত ৫ মাসে শুধু রেলওয়ের ঢাকা বিভাগেই মাদক মামলা হয়েছে অর্ধশত। আটক হয়েছে অর্ধশতাধিক চোরাকারবারি।

শেয়ার করুন .....




© 2018 allnewsagency.com      তত্ত্বাবধানে - মোহা: মনিকুল মশিহুর সজীব
Design & Developed BY ThemesBazar.Com