বৃহস্পতিবার, ১৭ Jun ২০২১, ১০:৫৯ অপরাহ্ন

মাধবপুরে কৃত্রিম পদ্ধতিতে পাকানো হচ্ছে কাঁঠাল

মাধবপুরে কৃত্রিম পদ্ধতিতে পাকানো হচ্ছে কাঁঠাল

নিউজ ডেস্ক : কাঁঠাল বাংলাদেশের জাতীয় ফল। এ ফলে নেই কোন আশঁ জাতীয় ফাইবার। কৃত্রিম পদ্ধতিতে অসাধু ব্যবসায়ীরা কাঁঠাল পাকাতে শিকমারা পদ্ধতিতে রাসায়নিক প্রয়োগ করা হচ্ছে- গাছে কাঁঠাল গোঁফে তেল এই প্রবাদবাক্য মেনে মানুষের গোঁফে তেল থাকুক আর না-ই থাকুক, গাছে গাছে এখন ঝুলছে বাংলাদেশের জাতীয় ফল কাঁঠাল।

 

তবে জনপ্রিয় এই ফল পাকায় এখন আর প্রকৃতির ওপর নির্ভর করতে হয় না। নানা ধরনের বিষাক্ত রাসায়নিক প্রয়োগ করে এক রকম জোর করেই মধু মাসের মধুফল কাঁঠাল পাকানো হচ্ছে। যার ফলে ঘাটাইলসহ মধুপুর গড় এলাকায় উৎপাদিত কাঁঠাল তার সুনাম খোয়াতে বসেছে। পাশাপাশি কাঁঠালের ন্যায্যমূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন কৃষক।

 

মাধবপুর উপজেলার কাঁঠালপ্রধান পাহাড়িয়া এলাকা সাতছড়ি ও তেলিয়াপাড়া বাগানে ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসীর কাছ থেকে জানা যায়, বেশি লাভের আশায় মৌসুম শুরুর আগেই কচি কাঁঠালে নির্বিচারে রাসায়নিক প্রয়োগের প্রতিযোগিতা শুরু হয়ে যায়। অসাধু ব্যবসায়ীরা অপরিপক্ব কাঁঠাল পাকাতে কার্বনের ধোঁয়া, পটাশের তরল দ্রবণ এবং রাইপেন ও ইথিফন জাতীয় বিষাক্ত রাসায়নিক পদার্থ প্রয়োগ করছে। আর স্থানীয় ভাষায় ‘শিকমারা পদ্ধতিতে কাঁঠালে এসব বিষাক্ত রাসায়নিক প্রয়োগ করা হচ্ছে।

 

শিকমারা পদ্ধতি সম্পর্কে স্থানীয় কাঁঠাল ব্যবসায়ীরা জানান, প্রথমে প্রায় দেড় ফুট লম্বা লোহার শিক কাঁঠালের বোঁটা বরাবর ঢুকিয়ে দিয়ে ছিদ্র করা হয়। পরে ছিদ্রপথে সিরিঞ্জ দিয়ে বিষাক্ত কার্বাইড, ইথিফন ও রাইপেন জাতীয় পদার্থ প্রয়োগ করা হয়। তারপর কাঁঠালগুলো স্তুপাকারে সাজিয়ে পলিথিন দিয়ে মুড়িয়ে রাখা হয়।

 

এ অবস্থায় ২৪ ঘণ্টায় একটি কচি কাঁঠাল পেকে যায়। এ ছাড়া মেশিনে স্প্রে করেও বিষাক্ত রাসায়নিক পদার্থ প্রয়োগ করে থাকে কেউ কেউ। উপজেলার হাঠ বাজারে গিয়ে দেখা যায়, কাঁঠাল ব্যবসায়ীরা দ্রুত কাঁঠাল পাঁকাতে শিকমারা পদ্ধতিতে কাঁঠালে রাইপেন ও ইথিফন জাতীয় বিষাক্ত রাসায়নিক পদার্থ প্রয়োগ করছে। অথচ সরকারিভাবে এসব রাসায়নিক বিক্রি নিষিদ্ধ। শুধু উপজেলার নয় মনতলা, চৌমুহনী, শাহপুর, রতনপুর, নোয়াপাড়া সহ বিভিন্ন এলাকার কাঁঠালের বাজার ঘুরে একই চিত্র দেখা গেছে।

 

এ ব্যাপারে মাধবপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ আল মামুন হাছান বলেন, কৃত্রিম পদ্ধতিতে এসবের কারণে কাঁঠালের গুণগত মান হ্রাস পায়। এতে মানবদেহে বিভিন্ন রোগের সৃষ্টি হতে পারে। যারা এসব পদ্ধতি ব্যবহার করে তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে।

শেয়ার করুন .....




© 2018 allnewsagency.com      তত্ত্বাবধানে - মোহা: মনিকুল মশিহুর সজীব
Design & Developed BY ThemesBazar.Com