বৃহস্পতিবার, ১৭ Jun ২০২১, ১১:৫০ অপরাহ্ন

আ.লীগের রাজশাহী বিভাগের সাংগঠনিক জেলাসমূহের মতবিনিময়

আ.লীগের রাজশাহী বিভাগের সাংগঠনিক জেলাসমূহের মতবিনিময়

নিউজ ডেস্ক : আজ বিকাল তিনটায় ভিডিও কনফারেন্সে আওয়ামী লীগের দপ্তর ও উপ-দপ্তর সম্পাদকের সাথে রাজশাহী বিভাগের সাংগঠনিক জেলাসমূহের ( রাজশাহী মহানগর, রাজশাহী, জয়পুরহাট, নওগাঁ, বগুড়া, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নাটোর, সিরাজগঞ্জ ও পাবনা জেলা) দপ্তর ও সহ-দপ্তর সম্পাদকদের এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

 

সভায় আওয়ামী লীগের কাজের ব্যবস্থাপনায় তথ্য ও প্রযুক্তির ব্যবহার নিয়ে আলোচনা করা হয়। ২০০৮ সালে ক্ষমতাসীন হওয়ার পর মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের পরামর্শে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে করছেন। সভায় বর্তমান যুগে তথ্য প্রযুক্তির গুরুত্ব তুলে ধরে আলোচনা শুরু করা হয়।

বক্তারা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ অনলাইনে প্রচার-প্রচারণার কৌশল নির্ধারণে মতামত দেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তৃণমূল পর্যন্ত দলীয় নেতা-কর্মীদের সক্রিয় অংশগ্রহণ নিশ্চিতের পাশাপাশি দলীয় প্রচার-প্রচারণায় উদ্বুদ্ধ করা, গুজবের বিরুদ্ধে মানুষকে কীভাবে সচেতন করা যায় এবং বিরোধী শিবিরের অপপ্রচারের বিরুদ্ধে কীভাবে পাল্টা জবাব নির্ধারণ করা যায়- তা নিয়ে আলোচনা করেন বক্তারা।

 

আজ ১১জুন ছিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস। ২০০৭ সালের অবৈধ ও অগণতান্ত্রিক তত্ত্বাবধায়ক সরকার মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা দিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে কারারুদ্ধ করেন। ২০০৮ সালের ১১জুন শেখ হাসিনার কারামুক্তির মাধ্যমে বাংলাদেশের অবরুদ্ধ গণতন্ত্র মুক্তি পায় বলে বক্তারা মনে করেন। বক্তারা বলেন- শেখ হাসিনা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনীতির মাধ্যমে এদেশের মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করেন বলেই বারবার তাকে হত্যা ও ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করতে হয়। কিন্তু জনগণের অক্ষয় ভালোবাসার কারণেই তিনি সকল ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করে সামনের দিকে এগিয়ে চলেন। সভা থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুকন্যা দেশরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করা হয়।

 

সভায় দলীয় কাজে তথ্য-প্রযুক্তির ব্যবহার ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ভূমিকা আলোচনা করা হয়। সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা গেছে, দেশে ৫কোটি মানুষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বিশেষ করে ফেসবুকে সক্রিয়। আর এই ব্যবহারকারীর অধিকাংশই তরুণ। তাই দলীয় কাজের ব্যবস্থাপনায় ও প্রচার-প্রচারণায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের গুরুত্ব তুলে ধরা হয়।

আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া নেতৃবৃন্দের প্রতি বলেন, সংগঠনে দপ্তর বিভাগ একটি গুরুত্বপূর্ণ সম্পাদকীয় বিভাগ। দপ্তর বিভাগ সচল থাকলে সংগঠনে প্রাণশক্তির সঞ্চার হয়। তিনি আরও বলেন- তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারের জন্য দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তোলার লক্ষ্যে জননেত্রী শেখ হাসিনা নির্বাচনী ইশতেহারের সাথে সামঞ্জস্য রেখে প্রতি বছর বাজেটে পর্যাপ্ত বরাদ্দ দিয়ে যাচ্ছেন। জননেত্রী শেখ হাসিনার সুদক্ষ নেতৃত্ব ও সময়োপযোগী ব্যবস্থাপনার কারণেই করোনাকালীন সময়েও বাংলাদেশের মানুষের মাথাপিছু আয় বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২২২৭ মার্কিন ডলারে, যা দক্ষিণ এশিয়ায় সর্বোচ্চ। এরপর সভায় বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক সায়েম খান।

 

এছাড়াও করোনা পরিস্থিতির মধ্যে মানুষের মাঝে অর্থ সহায়তা ও খাদ্য সহায়তা নিয়ে আলোচনা হয়। সভা থেকে রাজশাহী বিভাগে কোভিড পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে মানুষের মধ্যে সচেতনতা তৈরিতে কাজ করতে এবং স্বাস্থ্য সুরক্ষা বিধি মেনে চলার আহ্বান জানানো হয়। জেলা নেতৃবৃন্দ জানায়, করোনা প্রতিরোধে মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধিতে কাজ করা হবে এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কতৃক প্রদত্ত মাস্কও জনগণের মাঝে বিতরণ করা হবে।

 

আওয়ামী লীগের গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর রিসার্চ এন্ড ইনফরমেশন (সি আর আই)-এর পক্ষ থেকে সভা পরিচালনায় কারিগরি সহায়তা প্রদান করা হয়। সি আর আই এর পক্ষ থেকে প্রতিষ্ঠানটির কো-অর্ডিনেটর তন্ময় আহমেদ এবং ডাটাবেইজ টিমের সদস্য নূরুল আলম পাঠান মিলন ও কাওছার আহমেদ কৌশিক সভায় সংযুক্ত ছিলেন। এছাড়া সভায় রংপুর বিভাগের জেলাসমূহের সংযুক্ত দপ্তর ও উপ-দপ্তর সম্পাদকবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

আওয়ামী লীগের দপ্তর বিভাগ থেকে ধাপে ধাপে ৮টি বিভাগের জেলাসমূহের দপ্তর ও সহ-দপ্তর সম্পাদকদের সাথে এই সভার আয়োজন করা হচ্ছে।

শেয়ার করুন .....




© 2018 allnewsagency.com      তত্ত্বাবধানে - মোহা: মনিকুল মশিহুর সজীব
Design & Developed BY ThemesBazar.Com