বুধবার, ০৪ অগাস্ট ২০২১, ১১:৫৯ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বরিশাল হাসপাতালে  টাকা না দেয়ায় মেলেনি অক্সিজেন, ছটফট করে মারা গেলেন রোগী হেলেনা জাহাঙ্গীরের ২ সহযোগী আটক অ্যাটর্নি জেনারেল কার্যালয়ের সংশ্লিষ্টরা ভ্যাকসিন না নিলে বেতন বন্ধ টিকা বাণিজ্যে অভিযুক্ত ‘হুইপ পোষ্য’কে বরখাস্তের সিদ্ধান্ত হিলিতে তুলা কারখানায় আগুনে প্রায় ১০ লাখ টাকার ক্ষতি গাইবান্ধা গ্রাম পুলিশরা মানহীন সাইকেল গ্রহণে অস্বীকৃতি  অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে প্রথম জয়ে টাইগারদের প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন জগন্নাথপুরে করোনা উপসর্গে চার ঘণ্টার ব্যবধানে স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যু ২৬০০ ডোজ টিকা বিক্রি করেন হুইপের ভাই অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টি জয় নিয়ে যা বললেন মাহমুদউল্লাহ
ঈশ্বরদীতে ভিক্ষুক হত্যার রহুস্য উৎঘাটন

ঈশ্বরদীতে ভিক্ষুক হত্যার রহুস্য উৎঘাটন

ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি :

ঈশ্বরদীর সাহাপুর ইউনিয়নের আওতাপাড়ার রহিমপুর থেকে অজ্ঞাত পরিচয়ে গত বৃহস্পতিবার রাতে (২৪/৬/২১) উদ্ধারকৃত প্রতিবন্ধি ভিক্ষুকের পরিচিয় ও হত্যার রহুস্য উৎঘাটন করেছে ঈশ্বরদী থানা পুলিশ।

নিহত ভিক্ষুকের নাম মিলন হোসেন (৩০)। তিনি ফরিদপুর জেলার নগরকান্দা থানার কানফরদী গ্রামের আবু বক্কার মাতুব্বরের ছেলে। এই ঘটনায় এক নারীসহ তিন পুরুষ হত্যাকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

 

গ্রেফতারকৃতরা হলেনঈশ্বরদী উপজেলার সাহাপুর ইউনিয়নের আওতাপাড়ার রহিমপুর গ্রামের মানিক আলীর ছেলে জাহিদুল ইসলাম, জাহিদুলের স্ত্রী ছামেলা খাতুন, ছেলে শাকিল এবং নিরঞ্জন নামের অপর এক ভিক্ষুক।
আজ (সোমবার) দুপুরে ঈশ্বরদী থানা মিলনায়তনকক্ষে সংবাদ সম্মেলনে পাবনা পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম খান এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম খান জানান, মিলন শারিরিক প্রতিবন্ধি হওয়ায় স্বাভাবিকভাবে চলাফেরা করতে পারে না। তাই অন্যের ভ্যান ভাড়া করে প্রথমে চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা থানার দর্শনা কার্পাসডাঙ্গা ভূমিহীন পাড়ায় শ্বশুড় বাড়িতে থেকে ভিক্ষা করতেন। সেখানেই নিহত মিলনের সঙ্গে হত্যাকারীদের পরিচয় হয়। সেখান থেকে ভিক্ষা করার জন্য মিলন হত্যাকারী জাহিদুলের সঙ্গে ঈশ্বরদীতে চলে। পরে তারা পাবনা জেলার চাটমোহর রেলবাজার এলাকায় ভাড়া বাসায় থেকে ভিক্ষার কাজ শুরু করেন। হত্যাকারীরা নিজেদের ভ্যানে করে প্রতিবন্ধি ভিক্ষুক মিলনকে নিয়ে ভিক্ষা করতেন। এই জন্য প্রতি মাসে নিহত মিলনকে ১০ হাজার টাকা করে দেওয়ার শর্ত ছিলো। কিন্তু দুই মাস শেষে হত্যাকারীরা নিহত মিলনকে মাত্র ৫ হাজার টাকা প্রদান করেন। অবশিষ্ট টাকা না দেওয়ায় তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটির ঘটনা ঘটে।

 

এরই এক পর্যায় গত ২৪/৬/২১ রাতে ঘুমন্ত ভিক্ষুক মিলনকে জেগে তুলে হত্যাকারীরা পরস্পরের যোগসাজছে নির্মমভাবে হত্যা করে। লাশ গোপনে পুতে ফেলার জন্য চাটমোহর থেকে নিজ বাড়ি ঈশ্বরদীর আওতাপাড়ার রহিমপুরে এনে গ্রামবাসির নিকট ধরা পড়েন জাহিদুলসহ অন্যরা। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেন।

এ বিষয়ে ঈশ্বরদীর থানায় প্রতিবন্ধি ভিক্ষুক মিলনকে হত্যার দায়ের মামলা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা সবাই ওই মামলার আসামী। এই সময় ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফিরোজ কবির, ওসি (তদন্ত) হাদিউল ইসলামসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন .....




© 2018 allnewsagency.com      তত্ত্বাবধানে - মোহা: মনিকুল মশিহুর সজীব
Design & Developed BY ThemesBazar.Com