শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ০৫:২৬ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ার দখলে টিটো-মোশারুলের লড়াই, কার পক্ষ নেবে আ’লীগ আটপাড়ায় প্রধান শিক্ষকগণের মাসিক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত কয়রার বাগালী ইউনিয়ন পরিষদের উন্মুক্ত বাজেট সভা ঠাকুরগাঁওয়ের মাদারগঞ্জ গরু হাটে অতিরিক্ত খাজনা আদায়ের অভিযোগ ঠাকুরগাঁওয়ে রংপুর বিভাগীয় কমিশনার জাকির হোসেনের সাথে মতবিনিময় সভা প্রতারণার নতুন কৌশল ঠাকুরগাওয়ে মসজিদ, মাদ্রাসা সহ পাকাবসতবাড়ী নির্মাণের নামে কোটি কোটি টাকার প্রতারণা আটপাড়ায় খুদে শিক্ষার্থীদের ক্লাস নিলেন ইউএনও এম. সাজ্জাদুল অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবু বক্কর সিদ্দিক শ্যামল ঠাকুরগাঁওয়ে বক্ষব্যাধি ক্লিনিকের এক্সরে মেশিনটি প্রায় ১৫ বছর ধরে নষ্ট হয়ে পড়ে রয়েছে, আর অন্যদিকে চিকিৎসক সংকট ফরিদপুরে গরমে বেড়েছে তাল শাঁসের বিক্রি
ভোলাহাটে মাটি কাটতে বাধা দেয়ায় জমির মালিককে হুমকি

ভোলাহাটে মাটি কাটতে বাধা দেয়ায় জমির মালিককে হুমকি

গোলাম কবির,ভোলাহাট (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি: চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাট উপজেলার দলদলী ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন বারইপাড়া গ্রামে আমবাগানের মাটি কাটতে না দেয়ায় মাটি খেকো চক্রের সদস্যরা জমির মালিককে দেখে নেয়ার হুমকি দিয়েছে।

জমির মালিক বরইপাড়া গ্রামের মোঃ নুরুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, উপজেলার হরিপুর গ্রামের মোঃ জিয়াউর আমাকে নানা প্রকার প্রলোভন দেখিয়ে আমার আমবাগানের মাটি এক্সকাভেটর (ভেক) দিয়ে কেটে ইটভাটায় বিক্রি করার জন্য তিন বছর আগে সাড়ে তিন লাখ টাকায় ক্রয় করে। সে সময় কিছু মাটি কেটে ইটভাটায় বিক্রি করে। এখন আবার বাঁকী মাটি কাটা শুরু করলে এসিল্যান্ড তাদের ধরে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করে মাটি কাটা বন্ধ করে দেন।

তিনি বলেন, জরিমানার কদিন যেতে না যেতেই আবার মাটি কাটা শুরু করে। মাটি কাটতে বাধা দিয়ে সরকারি অনুমতি নিয়ে আসতে বলি। তারা আমাকে বলে চেয়ারম্যানের কাছে অনুমতির কাগজ আছে। চেয়ারম্যানকে ফোন করলে তিনি বলেন, ওদের কাছে অনুমতি না থাকলে মাটি কাটতে পারে? বলে আমাকে জানান।

নুরুল ইসলাম আরও জানান, আমি ১০ মার্চ উপজেলা ভূমি অফিস গিয়ে মাটি কাটার অনুমতির বিষয়ে জানতে চাইলে এসিল্যান্ড অফিসে না থাকায় অনুমতির বিষয়ে কেউ কিছু জানাতে পারেননি। ফলে আমার জমির মাটি কাটতে বাধা দিয়েছি। এখন মাটি কাটা চক্রের মূলহোতা জিয়াউর হুমকি দিয়ে বলেন, মাটি কাটতে না দিলে ৫ লাখ টাকা আদায় করবে।

এ ব্যাপারে জিয়াউর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এসিল্যান্ড অফিসে আবেদন করেছি। এসিল্যান্ড অফিসের অনুমতি নিয়ে মাটি কাটছি। দলদলী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ মোজাম্মেল হক চুটুর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি অনুমতি দিনি। তাঁদের মাটি কাটার বিষয়ে অনুমতি আছে কি না তাও জানিনা। এটা এসিল্যান্ড অফিস ভালো বলেতে পারবে।

ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসিল্যান্ড মোসাঃ আঞ্জুমান আরা বলেন, জমির মালিক অভিযোগ করলে যাচাইবাচাই করে দেখবো প্রতিবেদককে বলেন, আপনারা বললেই তো আমি কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারবোনা।

শেয়ার করুন .....




© 2018 allnewsagency.com      তত্ত্বাবধানে - মোহা: মনিকুল মশিহুর সজীব
Design & Developed BY ThemesBazar.Com